আশাশুনিতে প্রতিবন্ধি কলেজ ছাত্রকে থানায় ৩ দিন আটক রেখে মিথ্যা মামলায় জেলের ঘানি টানছে


প্রকাশিত : এপ্রিল ৪, ২০১২ ||

নিজস্ব প্রতিনিধি : আশাশুনি উপজেলার সোদকোনা গ্রামের প্রতিবন্ধি কলেজ ছাত্রকে মিথ্যা মালায় জড়িয়ে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার সকালে সাতক্ষীরা প্রেস ক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে ওই গ্রামের আসাফুর রহমান এই অভিযোগ করেন।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে আসাফুর রহমান বলেন, তার ভাই শেখ আজাহারুল ইসলাম একজন প্রতিবন্ধি, সে আশাশুনি ডিগ্রী কলেজের ডিগ্রী পরীক্ষার্থী। একই গ্রামের ক্ষমতাশীন দলের সদস্য আলমগীর হোসেনের সাথে তাদের দীর্ঘদিন যাবৎ পারিবারিক বিরোধ ছিল। যে কারণে আলমগীর ও তার লোকজন তাদের বিভিন্ন ভাবে ক্ষতি করার চেষ্টা করে আসছে। এরই জের হিসেবে গত ২২ মার্চ সোদকোনা মসজিদের পাশ থেকে সন্ধ্যায় তার ভাই শেখ আজাহারুলকে একই গ্রামের আলমগীর ও তার ক্যাডার বাহিনী ধরে নিয়ে বেধড়ক মারপিট করে জখম করে। এসময় তার কছে থাকা নগদ টাকা সহ মূল্যবান জিনিসপত্র কেড়ে নেয়। পরে তার প্রতিবন্ধি ভাই আজাহারুলকে মিথ্যা মামলায় ফাসানোর কৌশলে আশাশুনি থানায় সোপদ্দ করে। ক্ষমতার দাপটে আজাহারুলকে ৩দিন আশাশুনি থানায় আটক রাখে। পরে আলমগীর তার নিজের বোনকে দিয়ে ধ্বর্ষনের চেষ্টার অভিযোগ এনে সম্পুর্ণ মিথ্যা মামলা দায়ের করে। যাহা এজাহারের বর্ণনা পড়লে যে কোন বিবেকবান মানুষ সহজেই বুঝতে পারবে ঘটনাটি সত্য না সাজানো। কারণ একজন ডিগ্রী পরীক্ষার্থী প্রতিবন্ধি ছেলে একটি মেয়ের বাড়ীতে সন্ধ্যা সাড়ে ৭ টার সময় তার বাড়ীর লোকজন থাকা অবস্থায় ধর্ষণ করার চেষ্টা চালায় যাহা শুধু মাত্র বিকল মস্তিস্ক পাগলের দ্বারা সম্ভব। এজাহারের বর্ণনায় এ্টাই প্রমাণ করে ঘটনাটি শত্র“তামূলক ও সম্পূর্ণ মিথ্যা,,,  বানোয়াট। সংবাদ সম্মেলনে আরও বলেন, তার ভাই প্রতিবন্ধি হওয়ায় ঠিকমত হাটতে পারে না। মিথ্যা ভাবে তার নামে ধর্ষনের চেষ্টার অভিযোগে মামলা দেওয়া হয়েছে,সে জেল হাজতে থাকায় তার পড়াশুনার দারুন ভাবে ক্ষতি হচ্ছে। এভাবে জেল হাজতে থাকলে হয়তো তার পড়াশুনা চিরতরে বন্ধ হয়ে যাবে। এই মিথ্যা মামলা থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য তারা প্রশাসন ও সরকারের উচ্চ মহলের হন্তক্ষেপ কামনা করছে।