গরু রাখাল আলতাফের লাশ ফেরত দিয়েছে বিএসএফ


প্রকাশিত : জুলাই ২৯, ২০১২ ||

কলারোয়া প্রতিনিধি : কলারোয়া সীমান্তের বিপরীতে বিএসএফ’র গুলিতে নিহত বাংলাদেশি গরু রাখাল আলতাফ হোসেনের লাশ ২৬ দিন পর ফেরত দিয়েছে বিএসএফ। মৃত্যুর প্রায় ৪ সপ্তাহ পরে লাশ ফিরে পেয়ে স্বজনরা কান্নায় ভেঙে পড়েন। কলারোয়ার কেঁড়াগাছি সীমান্তের বিপরীতে ভারতের হাকিমপুর হাটখোলা সংলগ্ন সোনাই নদীর তীরে গতকাল শনিবার বিকেলে ভারতীয় কর্তৃপক্ষ আলতাফের লাশ হস্তান্তর করে। নিহত আলতাফের মামা কবির লাশ সনাক্ত করেন। মাদরা বিজিবি কোম্পানি কমাণ্ড সূত্রে জানা গেছে, সীমান্তের মেইন ১৩ নং পিলারের সাব ৩/৬ আরবি’র সন্নিকটে সোনাই নদীর তীরে গতকাল বিকেল ৫টা ২০ মিনিট থেকে ৬টা পর্যন্ত এ লাশ হস্তান্তর প্রক্রিয়া চলে। লাশ হস্তান্তরকালে ভারতীয় কর্তৃপক্ষের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন আমুদিয়া বিএসএফ ক্যাম্পের কমাণ্ডার বিবি সিংসহ ১৫ জন বিএসএফ সদস্য, স্বরূপনগর থানার সাব ইনস্পেক্টর বজলুর রহমান, তারালি পঞ্চাযেত’র উপ-অঞ্চল প্রধান আনিছুদ্দিন প্রমুখ। অপরদিকে বাংলাদেশের পক্ষে মাদরা বিজিবি ক্যাম্পের কমাণ্ডার সুবেদার সুলতান হোসেন, কাকডাঙ্গা বিজিবি ক্যাম্পের নায়েক সুবেদার ইয়াছিন মোল্যাসহ ১০ জন বিজিবি সদস্য, কলারোয়া থানার এএসআই নীতেশ কুমার, কেঁড়াগাছি ইউপি চেয়ারম্যান ভুট্টোলাল গাইন, সাংবাদিক খালেকুজ্জামান পল্টুসহ নিহতের স্বজনেরা। উল্লেখ্য, গত ২ জুলাই ভোরে কলারোয়া উপজেলার কাকডাঙ্গা সীমান্তের বিপরীতে ভারতের বসিরহাট মহকুমার সরূপনগর থানার তারালি এলাকায় গরু নিয়ে ফেরার পথে বিএসএফ’র ছোড়া গুলিতে বাংলাদেশি গরু রাখাল আলতাফ হোসেন (৩০) ঘটনাস্থলেই মারা যায়। সে কলারোয়া উপজেলার বোয়ালিয়া গ্রামের ফজলুর রহমানের ছেলে।