হরতালের নামে নৈরাজ্য সৃষ্টিকারীদের চিহ্নিত করে শাস্তি দেয়া হবে: দেবহাটায় স্বাস্থ্যমন্ত্রী


প্রকাশিত : মার্চ ১৩, ২০১৩ ||

দেবহাটা প্রতিনিধি: দেবহাটা উপজেলার বিভিন্ন স্থানে বিএনপি ও জামায়াত-শিবিরের তাণ্ডবে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শন এবং ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা প্রকাশের পাশাপাশি ঘটনার সাথে সম্পৃক্তদের আইনের আওতায় এনে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান মন্ত্রী অধ্যাপক ডা. আ ফ ম রুহুল হক।
মঙ্গলবার বেলা ১২টার দিকে তিনি ক্ষতিগ্রস্ত দেবহাটার পাঁচপোতা বাজার, সুশীলগাতী, ঈদগাহ বাজার, গাজীরহাটের বিভিন্ন সংখ্যালঘু পরিবারের বাড়ি, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, আওয়ামী লীগ অফিস পরিদর্শনকালে এসব কথা বলেন। এসময় তিনি বিএনপি ও জামায়াত-শিবিরের তাণ্ডবে ক্ষতিগ্রস্ত সংখ্যালঘুদের ভস্মিভূত ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও ঘরবাড়ির চিত্র দেখে বিস্মিত হন। পরবর্তীতে দুপুর ২টার দিকে নওয়াপাড়া ইউনিয়নের নাংলা বাজার ও পাশ্ববর্তী এলাকায় অগ্নিসংযোগকৃত ঘর-বাড়ি ও দোকান পরিদর্শন করেন।
মন্ত্রী এ সময় বলেন, স্বাধীনতার পর বাংলাদেশে এমন ঘটনা কখনও ঘটেনি। কোন সভ্য সমাজের মানুষ সংখ্যালঘু পরিবারের ওপর হামলাসহ অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটাতে পারে না। যারা দেশকে অস্থীতিশীল করে তুলতে এমন নৃশংস কাজ করেছে, তারা যত ক্ষমতাশালী হোক না কেন তাদেরকে অবশ্যই আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেয়া হবে।
এ সময় তিনি স্বাধীনতাবিরোধী অপশক্তিকে প্রতিহত করতে দলীয় নেতা-কর্মীদের ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার আহবান জানান। পাশাপাশি এ ঘটনার সাথে সম্পৃক্তদের বিরুদ্ধে জরুরী ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আ.ন.ম তরিকুল ইসলাম, দেবহাটা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) কাজী দাউদ হোসেন কে নির্দেশ দেন। তাছাড়া এসব স্বাধীনতাবিরোধী শত্র“দের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য শীঘ্রই প্রশাসনের উর্ধতন কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেয়া হবে বলেও তিনি জানান।
এ সময় স্বাস্থ্যমন্ত্রীর সাথে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আ ন ম তরিকুল ইসলাম, ম্যাজিস্ট্রেট মোশারফ হোসেন, সহকারি পুলিশ সুপার তাজুল ইসলাম, দেবহাটা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) কাজী দাউদ হোসেন, দেবহাটা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মুজিবর রহমান, সাধারণ সম্পাদক মনিরুজ্জামান মনি প্রমুখ।