খুলনায় সুন্দরবন দিবস পালিত


প্রকাশিত : ফেব্রুয়ারি ১৪, ২০১৭ ||

পত্রদূত ডেস্ক: নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে মঙ্গলবার খুলনায় সুন্দরবন দিবস-২০১৭ পালিত হয়। এ উপলক্ষে আয়োজিত তিন দিনব্যাপী কর্মসূচীর মধ্যে ছিল শোভাযাত্রা, আলোচনা সভা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, চিত্রাঙ্কন ও বক্তৃতা প্রতিযোগিতা। দিবসটির এবারের প্রতিপাদ্য ‘বিশ্ব ভালবাসা দিবসে সুন্দরবনকে ভালবাসুন’। খুলনা বন বিভাগ ও সুন্দরবন একাডেমী যৌথভাবে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।
এ উপলক্ষে আজ সকালে খুলনা জাতিসংঘ শিশু পার্কে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন খুলনা বিভাগীয় কমিশনার মো. আবদুস সামাদ। এতে অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন খুলনা-২ আসনের সংসদ সদস্য মুহাম্মদ মিজানুর রহমান, খুলনা জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শেখ হারুনুর রশিদ, বন সংরক্ষক জহির উদ্দিন আহমেদ, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের সেন্টার ফর ইন্টিগ্রেটেড স্টাডিজ অন দ্যা সুন্দরবনস এর পরিচালক প্রফেসর ড. দিলীপ দত্ত, খুলনা প্রেস ক্লাবের সভাপতি এসএম হাবিব, ইউএসএআইডি’র চিফ অব পার্টি গ্রে এফ কলিন্স এবং ইউএসএআইডি’র ক্রেল প্রকল্পের রিজিওনাল কো-অডিনেটর শেখ মো. জিয়াউল হক। স্বাগত বক্তৃতা করেন বিভাগীয় বন কর্মকর্তা মুহাম্মদ সাঈদ আলী।
সংসদ সদস্য মুহাম্মদ মিজানুর রহমান তাঁর বক্তৃতায় বলেন, সুন্দরবন এ অঞ্চলের মাটি ও মানুষকে মায়ের মত আগলে রেখেছে। সুন্দরবনকে রক্ষার জন্য সরকার বনের ওপর নির্ভরশীল মানুষের সংখ্যা কমিয়ে আনতে নানা ধরনের কর্মসূচী গ্রহণ করেছে। বনদস্যু ও চোরা শিকারীদের তৎপরতা বন্ধে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে নিয়মিত অভিযান অব্যাহত রাখার তিনি পরামর্শ দেন।
আলোচনা সভায় অন্যান্য বক্তারা বলেন, জীববৈচিত্র্য হলো জীবšত পাঠশালা। সুন্দরবনে লবণাক্ততা বৃদ্ধি রোধে মিষ্টি পানির প্রবাহ চলমান রাখতে হবে। এজন্য পার্শ্ববর্তী দেশের সাথে যৌথ উদ্যোগে কাজ করার ওপর তারা গুরুত্বারোপ করেন। বক্তারা সুন্দবনকে রক্ষার ক্ষেত্রে বন বিভাগের সক্ষমতা বৃদ্ধি, তৃণমূল পর্যায়ে সচেতনতা সৃষ্টিসহ সুন্দরবন দিবসকে জাতীয় দিবস হিসেবে সারা দেশে পালনের আহবান জানান।
এর আগে খুলনা জেলা প্রশাসক নাজমুল আহসানের নেতৃত্বে রয়েল মোড় থেকে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের  হয়ে বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে জাতিসংঘ শিশু পার্কে এসে শেষ হয়। শোভাযাত্রায় স্কুল শিক্ষার্থীসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ অংশ গ্রহণ করেন।
পরে সুন্দরবনের উপর চিত্রাংকন ও বক্তৃতা প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মাঝে ক্রেস্ট প্রদান করা হয়। উলে¬খ্য, ২০০১ সাল থেকে প্রতি বছর ১৪ ফেব্র“য়ারি সুন্দরবন দিবস পালিত হয়ে আসছে।