পাওনা টাকা চাওয়াকে কেন্দ্র করে ঘোনায় মুক্তিযোদ্ধাকে পিটিয়ে হত্যা: আটক ৪


প্রকাশিত : মার্চ ১, ২০১৭ ||

নিজস্ব প্রতিনিধি: পাওনা টাকা চাওয়াকে কেন্দ্র করে সাতক্ষীরায় মুক্তিযোদ্ধা আবুল কালাম আজাদকে পিটিয়ে হত্যা করেছে দেনাদার মোমিনুল ইসলাম। এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে পুলিশ চারজনকে আটক করেছে। সোমবার রাত ৯ টার দিকে সাতক্ষীরা সদর উপজেলার ঘোনা বাজারে এ ঘটনাটি ঘটে।
মুক্তিযোদ্ধা আবুল কালাম আজাদ (৬২) সাতক্ষীরা সদর উপজেলার ঘোনা গ্রামের মৃত আব্দুল হামিদের ছেলে।
গ্রেফতারকৃতরা হলো একই গ্রামের মোমিনুল ইসলাম, ওয়াদুদ, মুন্না হোসেন, ও মো. রনি।
নিহত মুক্তিযোদ্ধার ছেলে আক্তারুল ইসলাম জানান, তার পিতার ঘোনা বাজারে একটি রড সিমেন্টের দোকান আছে। স্থানীয় মোমিনুল তার পিতার দোকান থেকে প্রায় লক্ষাধিক টাকার মালামাল বাকি নেয়। সে টাকা দিতে নানা সময় টালবাহানা করতে থাকে। সোমবার রাত ৯টার দিকে ঘোনা বাজারে তার পিতা মোমিনুলের কাছে পাওনা টাকা চায়। এতে মোমিনুল ক্ষিপ্ত হয়ে তার পিতাকে বেধম মারপিট করে আহত করে। মারাত্মক আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হলে রাত আড়াইটার দিকে তিনি মৃত্যু বরন করেন। এ ঘটনায় তিনি বাদী হয়ে সাত জনকে আসামী করে সাতক্ষীরা সদর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করলে পুলিশ চারজনকে আটক করেছে।
সাতক্ষীরা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি ফিরোজ হোসেন মোল্লা ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তানকে পিটিয়ে এভাবে মেরে ফেলবে এটা মেনে নেওয়া যাবে না। ঘটনার সাথে যারা জড়িত তাদের চারজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।
মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাতক্ষীরা সদর উপজেলা কমান্ডের কমান্ডার হাসানুল ইসলাম বলেন, এই অকুতোভয় মুক্তিযোদ্ধা ১৯৭১ সালে আট নম্বর সেক্টরের ভোমরা কাকডাঙ্গা হাকিমপুরে যুদ্ধ করেন। তিনি অবিলম্বে মুক্তিযোদ্ধা কালাম হত্যায় জড়িতদের শাস্তি দাবি করেন।