শহরে জুয়েলারী দোকানে আবারো চুরি দোষীদের গ্রেপ্তার ও বিচারের দাবিতে ব্যবসায়ীদের প্রতিবাদ


প্রকাশিত : March 6, 2017 ||

নিজস্ব প্রতিনিধি: শহরে জুয়েলারী দোকানে আবারো দু:সাহসিক চুরি সংঘটিত হয়েছে। সোমবার ভোর রাতে শহরের পলাশপোল এলাকার সরদারপড়া মোড়ে বিমলা জুয়েলার্সে এই চুরির ঘটনা ঘটে। চোরেরা দোকানের একটি সিন্দুক ভেঙ্গে আড়াই ভরি ওজনের সোনার গহনা ও নগদ অর্থ নিয়ে পালিয়ে যায়। এঘটনার প্রতিবাদে সোমবার সকাল ৯টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত জেলা শহরের সকল জুয়েলারী দোকান ও কারখানা বন্ধ রাখা হয়।
জানা যায়, সংঘবদ্ধ চোরেরা ভোর রাতে সাতক্ষীরা শহরের পলাশপোল এলাকার সরদারপড়া মোড়ে সমির কুমার রায়ের মালিকানাধীন বিমলা জুয়েলার্সে পাশের একটি এ্যালোমিনিয়ামের দোকানের তালা ভেঙ্গে ভিতরে ঢোকে। পরে দেয়াল কেটে তারা স্বর্ণের দোকানে প্রবেশ করে। এসময় দোকানের একটি সিন্দুক ভেঙ্গে আড়াই ভরি ওজনের সোনার গহনা ও নগত অর্থ নিয়ে পালিয়ে যায়। যাওয়ার সময় চোরেরা এ্যালোমিনিয়ামের দোকানের সার্টারের নতুন দুইটা তালা লাগিয়ে দিয়ে যায়। বেলা ৯টার দিকে দোকান মালিক ঘর খুলতে এসে সার্টারে নতুন তালা দেখে পার্শ্ববর্তী দোকানীদের খবর দেয়। পরে ওই তালা ভেঙ্গে ভিতরে ঢুকে তারা বিমলা জুয়েলার্সে চুরির ঘটনা জানতে পারেন। এসময় সেখান থেকে ৫টি হ্যান্ড ড্রিল ম্যাশিন, ৩০ টি ফলা, ৪টি সাবল, ৮টি স্ক্রু ড্রাইভার, ৬টি ফাইল (উকো) ও ১টি হাতুড়ি উদ্ধার করা হয়।
এদিকে এই ঘটনার প্রতিবাদে সোমবার সকাল থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত বন্ধ শহরের সকল জুয়েলারী দোকান ও কারখানা বন্ধ রাখে ব্যবসায়ীরা। পরে বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতি সাতক্ষীরা জেলা শাখার উদ্যোগে শহরের খান মার্কেটের সামনে এক প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়। সাতক্ষীরা জুয়েলার্স সমিতির সভাপতি গৌর চন্দ্র দত্তের সভাপতিত্বে প্রতিবাদ সভায় বক্তব্য রাখেন, সমিতির সহ-সভাপতি মনি শংকর রায়, জয়দেব দে, মিলন দত্ত, সাধারণ সম্পাদক মনোরঞ্জন কর্মকার মন্টু, কোষাধ্যক্ষ রতন সরকার, অচিন্ত কুমার, স্বপন দে, স্বর্ণ শ্রমিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক রমেশ মজুমদার প্রমুখ। এ সময় বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতি সাতক্ষীরা জেলা শাখার নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। সমগ্র অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতি সাতক্ষীরা জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক মনোরঞ্জন কর্মকার মন্টু।
বক্তারা বলেন, শহরের রাঁধানগর এলাকায় আধুনিক জুয়েলার্সে দু:সাহসিক চুরির রেশ কাটতে না কাটতেই আবারো একটি দোকানে চুরি হয়েছে। এভাবে চলতে থাকলে এবং প্রশাসন যদি নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার না করে তাহলে তাদের ব্যবসা করা মুশকিল হয়ে পড়বে। তারা অবিলম্বে শহরের জুয়েলারী দোকানে সকল চুরির ঘটনা উ˜্ঘাটন পূর্বক চুরি যাওয়া মালামাল উদ্ধার করে দোষীদের গ্রেপ্তার ও শাস্তির দাবি জানান। প্রশাসন দ্রুত চোর চক্রকে গ্রেপ্তার ও মালামাল উদ্ধার করতে না পারলে পরবর্তীতে কঠোর কর্মসূচি দেয়া হবে বলে জানান তারা।
বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতি সাতক্ষীরা জেলা শাখার সভাপতি গৌর চন্দ্র দত্ত বলেন, সাতক্ষীরা শহরে একের পর এক জুয়েলার্সে চুরির ঘটনায় ব্যবসায়ীরা দারুণভাবে উদ্বিঘœœ হয়ে পড়েছেন। গত ১৩ জানুয়ারী রাতে একই কায়দায় শহরের রাধানগরস্থ নিউ আধুনি জুয়েলার্স থেকে চোরেরা ৩১৫ ভরি ওজনের স্বর্ণের গহনা চুরি করে নিয়ে যায়। একই ভাবে পাটকেলঘাটা বাজারে একটি স্বর্ণের দোকানে চুরি সংঘঠিত হয়। এসব ঘটনায় থানায় পৃথক মামলা দায়ের করা হলেও মালামাল উদ্ধার তো দূরের কথা পুলিশ এখনো পর্যন্ত এই চুরির সাথে জড়িত সঠিক কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি। দ্রুত দোষীদের গ্রেপ্তার ও চুরি যাওয়া মালামাল উদ্ধার করতে না পারলে কেন্দ্রের সাথে আলোচনা করে পরবর্তীতে কঠোর কর্মসুচি দেয় হবে বলে তিনি জানান।