কপিলমুনি বাজার ব্যবসায়ীদের সীমাহীন দুর্ভোগ


প্রকাশিত : মার্চ ২১, ২০১৭ ||

কপিলমুনি (খুলনা) প্রতিনিধি: সম্পূর্ণ বাজার হয়েছে ডাস্টবিন, অভিভাবকহীন, অপরিকল্পিত বাজার সংস্কার, চলছে হরিলুট, ব্যবসায়ী ও ক্রেতাদের দুর্ভোগ আর ভোগান্তি চরমে। এমন ভাবে আক্ষেপ জানান দেশের বৃহত্তম পাইকারি বাণিজ্যিক বাজারের ব্যবসায়ীরা। খুলনা জেলার দ্বিতীয় এবং দেশের বৃহত্তম ১৩টি পাইকারি বাজারের মধ্যে অন্যতম পাইকগাছা উপজেলার কপিলমুনি বাজার। বাজারের মধ্যে দিয়ে রাজধানী ঢাকা ও জেলা শহর খুলনা সহ অন্যান্য স্থানে যাতাযাতের প্রধান সড়ক। বাজারে পশ্চিম পাশে কপোতাক্ষ নদ। হাঁটপেরিফেরি ফাঁদে বাজারে গড়ে উঠছে না আধুনিক ব্যবসা প্রতিষ্ঠানসহ বিলাসবহুল শফিংমল। শত বছরের আগে রায় সাহেব বিনোদ বিহারী সাধু প্রতিষ্ঠিত বাজারের অধিকাংশ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান গুলো এখনো পুরাতন অবকাঠামো। গত এক দশক আগেও বাজারের অধিকাংশ মালামাল নৌপথে আনা নেওয়া হতো। কিন্তু কপোতাক্ষ নদের মৃত হওয়ায় নৌপথ সম্পূর্ণ বন্ধ হয়েছে। বন্ধ হয় নদ দিয়ে পানি নিস্কাশন। নদ ভরাট হয়ে উঁচু হওয়ায় গত কয়েক বছর ধরে বর্ষা মৌসুমে বাজার কাঁদাপানিতে একাকার থাকছে।
জানাযায়, এমনি অবস্থায় গত ৮মাস আগে এশিয়ান উন্নয়ন ব্যাংক ও বাংলাদেশ সরকারের অর্থায়নে ও এলজিডি তত্বাবধানে কপিলমুনি বাজার উন্নয়ন কাজে ৭কোটি ১৭লাখ ৪৩হাজার ২শত ৮৪.৮৯টাকা বরাদ্ধ দেওয়া হয়। উন্নয়ন কাজটিতে চুক্তিবদ্ধ হয় ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মেসার্স ফয়সাল ট্রেডার্স, খুলনা। গত বছরের জুলাই মাসে বাজারের রাস্তাঘাট ও ড্রেন নির্মাণ কাজ শুরু করে। প্রথমে বাজরে স্বর্ণপট্টির রাস্তা উঁচু ও ঢালাইয় কাজ শেষ করলেও কালী মন্দির, কলেজ সড়ক, পালপাড়া, বণিক সমিতি, পুলিশ ফাঁড়ী, কপোতাক্ষ নদ বাইপাস সড়কসহ ৯ থেকে ১০টি সড়ক ও কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ ড্রেনের আংশিক কাজ খুঁড়াখুড়ি করে বন্ধ রেখেছে। সংশ্লিষ্ঠ ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান খোঁড়া অজুহাতে কাজ বন্ধ রেখেছে। কিন্তু সোমবার (২০মার্চ) সরেজমিনে বাজারে কোথাও কাজ করতে দেখা যায়নি। স্থানীয় ব্যবসায়ীদের অভিযোগ যে টুকু কাজ করা হয়েছে তাও থেমে থেমে করা হয়েছে। তাছাড়া সরু ড্রেন করতে স্কুভেট মেশিন দিয়ে ১০ থেকে ১২ ফুট প্রস্থ খাল কেটে দোকানের সামনে মাটির উঁচু স্তুপ করে রাখা হয়। তাছাড়া ড্রেন ও রাস্তা নির্মাণে ব্যবসায়ীদের রয়েছে নানা অভিযোগ। চলতি বছরের ৪জানুয়ারি কাজ শেষ করার কথা থাকলেও সিহিং করে কাজ বন্ধ রেখে সংশ্লিষ্ঠ প্রতিষ্ঠান।
বাজারের ব্যবসায়ী মফিজুল বিশ্বাস জানান, গত বর্ষা মৌসুমে খুঁড়াখুঁড়ি কাজ শুরু করলে সীমাহীন দুর্ভোগ পোয়াতে হয়েছে। গত দু’দিনের বৃষ্টিতে বাজারে বিভিন্ন জায়গায় স্তুপকৃত মাটি ও রাস্তায় পানি জমে কাঁদামাটিতে একাকার হচ্ছে সকলে। দ্রুত পানি নিস্কাশন ব্যবস্তা না করলে সম্পূর্ণ বাজার পানিতে নিমজ্জিত হবে। ব্যবসায়ী দীপ অধিকারী জানান-পানি নিষ্কাশনের জন্য বাজারের পুলিশ ফাঁড়ী মোড় থেকে প্রধান সড়ক কেটে ১০মিটার লম্বা কালবার্ট করার বরাদ্ধ রয়েছে। সেই কালবার্ট ও সংযোগ ড্রেনটির কাজ আজও শুরু হয়নি। ব্যবসায়ী পিযুস সাধু জানান, বাজারের ভেতরে ড্রেন তৈরীর জন্য মাটি খুঁড়ে রাখা হয়েছে, ফলে মালামাল আনা-নেওয়াসহ ক্রেতাদের আসা যাওয়ায় চরম দুর্ভোগ পোয়াতে হচ্ছে। তাছাড়া ড্রেন যে ভাবে করা হচ্ছে তাতে পানি নিস্কাশন না হয়ে জলাবদ্ধতার আশঙ্কা করেন তিনি। বাজারে আর এক ব্যবসায়ী কিনু পাল জানান, জেলার গুরুত্বপূর্ণ পাইকারী বাণিজ্যিক নগরী কপিলমুনি বাজার। উন্নয়নের নামে বাজারটি প্রায় এক বছর ডাস্টবিন করে রেখেছে। সকল ব্যবসায়ীদের স্বার্থে দ্রুত কাজ সম্পন্ন করার দাবী জানান তিনি।