কলারোয়ায় শেখ হাসিনার গাড়ি বহরে হামলা মামলার স্বাক্ষী নিরাপত্তাহীনতায় প্রধানমন্ত্রীর দৃৃষ্টিআকর্ষণ


প্রকাশিত : এপ্রিল ১৮, ২০১৭ ||

নিজস্ব প্রতিনিধি: কলারোয়ায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গাড়ি বহরে হামলা মামলার স্বাক্ষী সরদার আনছার আলী জীবনের নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে বলে সোমবার সকালে সাংবাদিকদের কাছে অভিযোগ করেছেন। তিনি বলেন, গত ৫ মার্চ ২০১৩ সালে জামায়াত-শিবির ও বিএনপির নেতাকর্মীরা উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যানের অফিস উড়িয়ে দেওয়ার জন্য বোমা হামলা চালায়। এই বোমা হামলায় উপজেলার শাকদহ গ্রামের শাহাজান খার ছেলে আব্দুল আলিম (৪৩), বৈদ্যপুর গ্রামের মৌফল হোসেন (৫৫), হেলাতলা গ্রামের মৃত ফজল আলীর ছেলে সরদার আনছার আলী(৫৬) ও একই গ্রামের আফসার আলীর ছেলে জিয়াউর রহমান (৪২)সহ আরো অনেকে আহত হয়। গুরুতর জখমপ্রাপ্ত হয়ে কলারোয়া সরকারি ও যশোর সদর হাসপাতালে ভর্তি হন তারা। এর মধ্যে চিকিৎসাধীন অবস্থায় হাটুনি গ্রামের গহর আলীর ছেলে শুকুর আলী (৫২) বেলা ৫টার দিকে মারা যায়। তিনি এসময় সরকারী ভাবে কোন প্রকার সাহায্য সহযোগিতা পাননি। এ ঘটনার পরে তার দুটি চোখে কম দেখেন ও শরিরের মধ্যে অনেক গোলা বারুদ রয়ে গেছে। তিনি সার্বিক ভাবে অসুস্থ, টাকা পয়সার অভাবে ভাল চিকিৎসা নিতে পারছেন না। এছাড়া ২০০২ সালের ৩০ আগস্ট সকাল ১০টায় প্রধানমন্ত্রীর গাড়ি বহরে হামলা মামলার একজন স্বাক্ষী। এই স্বাক্ষী হওয়ার কারনে জামায়াত-শিবির ও বিএনপির নেতা কর্মীরা বিভিন্ন সময় তাকে জীবন নাশের হুমকি প্রদান করছে। তিনি নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন। যে কোন সময় তাকে বড় ধরণের ক্ষয়ক্ষতি করতে পারে বলে ধারণা করছেন। বর্তমানে সরদার আনছার আলী উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য পদে রয়েছেন। তিনি উন্নত চিকিৎসার ও জীবনের নিরাপত্তার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দৃষ্টি আকর্ষণ কমনা করেছেন। তবে নিরাপত্তাহীনতার বিষয়টি তিনি স্থানীয় আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীকে জানিয়েছেন কিনা সেটা সম্পর্কে কিছু জানা যায়নি।