চাম্পাফুলে আমে মেশানো হচ্ছে ক্ষতিকারক দ্রব্য


প্রকাশিত : মে ২০, ২০১৭ ||

চাম্পাফুল (কালিগঞ্জ) প্রতিনিধি: কালিগঞ্জ উপজেলায় চাম্পাফুলে অপুষ্ট আমে মেশানো হচ্ছে মানবদেহের জন্য ক্ষতিকারক রাসায়নিক দ্রব্য। বর্তমান বিশ^ বাজারে যখন স্থান পায় বাংলাদেশের আমের বাজার, ঠিক তখনই এলাকার কিছু অসাধু ব্যবসায়ীরা অধিক লাভের আশায় অপুষ্ট আম পেড়ে রাসায়নিক ব্যবহার অব্যাহত রেখেছে। আর তাই বিশ^ বাজারে বাংলাদেশের আমের সুনাম অর্জন করলেও অসাধু ব্যবসায়ীদের প্ররোচণায় বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনের খাত অনেকটায় প্রশ্নবিদ্ধ হয়ে উঠেছে। ভরা মৌসুমে অপুষ্ট আম পাকাতে ব্যবহার হচ্ছে বিশাক্ত ফরমালিন। অপুষ্ট আম পাড়া হয় এবং গাছতলাতেই স্প্রে করা হয় নিষিদ্ধ ফরমালিন। শুধু তাই নয় সরেজমিনে গেলে আরও দেখা যায় আম ব্যবসায়ীরা অপক্ত আমা পেড়ে বাগানে রাখে এবং প্রকাশ্যে স্প্রে করে কারবাইট, ইথোফিন ও ইথোপ্লাস নামের এক হরমন জাতীয় বিশাক্ত রাসায়নিক। এলাকার বিভিন্ন ব্যবসায়ীদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য চাম্পাফুল গ্রামের প্রভাষ বসু (কুনো), অনুপম বসু, জাহাঙ্গীর আলম সহ আরও নাম না জানা দশ বারো জন  ব্যবসায়ী। এদের নিয়ন্ত্রণ করে এলাকার বহু ব্যবসায়ীর একজন চাম্পাফুল গ্রামের বরকত আলী গাজীর ছেলে নুর ইসলাম। এলাকার ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে পাইকারী দরে আম ক্রয় করে ঢাকায় পাঠানো তার কাজ। সেই সুবাদে নুর ইসলাম এলাকার ব্যবসায়ীদেরকে পুলিশ এবং সাংবাদিকদের নাম ভাঙিয়ে ব্যবসায়ী প্রতি ১,০০০/১,৫০০ টাকা হাতিয়ে নেয়। চাম্পাফুল গ্রামের ব্যাবসায়ী প্রভাস বসু যিনি এলাকার একজন বড় ব্যবসায়ী তার সাথে কথা বলে জানা গেছে, তিনি বলেন আমরাতো নির্ভয়ে আমে ফরমালিন স্প্রে করি কারণ, আমরা সকল ক্ষেত্রে সবাইকে টাকা দেই নুর ইসলামের মাধ্যমে। এই অবস্থার প্রেক্ষিতে এলাকায় বিভিন্ন ব্যবসায়ীর কাছ থেকে অন্যের দোহায় দিয়ে টাকা নেয়া সহ অপুষ্ট আমে বিশাক্ত ফরমালিন সহ রাসায়নিক ক্ষতিকারক বন্ধের দাবি জানিয়ে এলাকার সূধীজন উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছে।