এমপি মুস্তফা লুৎফুল্লাহ ও জাতীয় পাটির নেতৃবৃন্দের সাথে নাগরিক নেতৃবৃন্দের মতবিনিময় নাগরিক ভোগান্তি লাঘবে ভ্যান রিকসার বিরুদ্ধে অভিযান বন্ধ, বিদ্যুৎ সমস্যার সমাধান ও বাইপাস আলিপুর চেকপোস্টে নেওয়ার দাবী


প্রকাশিত : মে ২০, ২০১৭ ||

পত্রদূত ডেস্ক: সাতক্ষীরা জেলা নাগরিক কমিটির নেতৃবৃন্দ সাতক্ষীরা-১ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি এড. মুস্তফা লুৎফুল্লাহ ও জেলা জাতীয় পাটির নেতৃবৃন্দের সাথে মতবিনিময় করেছেন। শুক্রবার বেলা ১১টায় এবং সন্ধ্যায় এ মতবিনিময় অনুষ্ঠিত হয়। মতবিনিময় সভায় এড. মুস্তফা লুৎফুল্লাহ সাতক্ষীরা বাইপাস সড়ক মেডিকেল কলেজের পরিবর্তে আলিপুর চেকপোস্ট পর্যন্ত নিয়ে যাওয়া সংক্রান্ত জেলা নাগরিক কমিটির বক্তব্যের সাথে একমত পোষণ করেন।
অপরদিকে জেলা জাতীয় পাটির নেতৃবৃন্দ সাতক্ষীরার চলমান নৈরাজ্যকর পরিস্থিতিতে ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন সাতক্ষীরা জনপ্রতিনিধিরা জনগনের মনোভাব বুঝতে ব্যর্থ হয়েছে। যে কারন এখন জনগনের অধিকার রক্ষায় গণআন্দোলনের বিকল্প নেই। নেতৃবৃন্দ নাগরিক কমিটির ১০দফার সাথে একমত পোষণ করে সকল কর্মসূচিতে দলীয় নেতাকর্মীদের অংশগ্রহণ করার অনুরোধ জানান।
সভায় গত ১৫ মে থেকে সাতক্ষীরা শহরের চলাচলকারী ব্যাটারী ও ইঞ্জিনচালিত ভ্যান বিরোধী অভিযানের ফলে যে অবর্ণনীয় দুর্ভোগ সৃষ্টি হয়েছে তা তুলে ধরেন নাগরিক নেতৃবৃন্দ। তারা বলেন, শহরে বসবাসকারী লাখ লাখ মানুষকে কষ্ট দেওয়ার কোন অধিকার কারো নেই। তাছাড়া অভিযানের মাধ্যমে গরীব ভ্যান রিকসা চালকদেরও সীমাহীন হয়রানির মধ্যে ফেলা হয়েছে। সাতক্ষীরা শহরের দেড় লাখ মানুষের বসবাস এবং প্রতিদিন এই শহরের জেলার বিভিন্ন এলাকার ২/৩ লাখ মানুষের আগামন ঘটে। এর মধ্যে দেড় লাখ মানুষ ভ্যান রিসকা চড়ে যাতায়ত করে। শহরের বিভিন্ন স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসার লেখাপড়ারত ৫০হাজার শিক্ষির্থী অধিকাংশই ভ্যান রিকসা চড়ে। তাদের কথা বিবেচনা না করে রোজা ও ঈদকে সামনে রেখে এই অভিযান শুরু করা হয়েছে। এছাড়া আর এক ভোগান্তির নাম হচ্ছে, ঘনঘন লোডশেডিং। প্রতিদিন গড়ে প্রায় বার থেকে চৌদ্দ ঘণ্টা বিদ্যুৎ থাকে না এবং পল্লী বিদ্যুৎ গ্রাহকদের দিনে বিশ ঘণ্টা বিদ্যুৎ বিহীন অবস্থায় থাকতে হচ্ছে। এই সকল ঘটনায় সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন হচ্ছে। বক্তারা বলেন, প্রশাসনের ক্ষমতা নেই রাতারাতি যানবাহনের সমস্যর সমাধান করা। যেকারণে বৈধ বিকল্প যানবাহনের ব্যবস্থা করার মধ্য দিয়েই স্বাভাবিক প্রক্রিয়াার ও সমস্যর সমাধান করতে হবে। বক্তারা অবিলম্বে গণবিরোধী অভিযান বন্ধ ও বিদ্যুতের সমসা সমাধানের জন্য জরুরী পদক্ষেপ নেওয়ার দাবী জানান। নেতৃবৃন্দ জেলা নাগরিক কমিটির আশু ১০ দফা দাবী বাস্তবায়নের জন্য সাতক্ষীরা-১ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি এড. মুস্তফা লুৎফুল্লাহর হস্তক্ষেপ কামনা করেন। নেতৃবৃন্দ আরও বলেন, মানুষ এখন ইন্টারনেট গতিতে চলতে চায়। যে কারণে চেষ্টা করলেও তাদেরকে প্যাডেল চালিত ভ্যান রিকসার যুগে ফিরিয়ে আনা যাবে না। এরজন্য ব্যাটারী ইঞ্জিনের বিকল্প আরো উন্নতমানের যানবাহনের ব্যবস্থা করতে হবে। তাহলে কোন অভিযানের প্রয়োজন হবে না। এমপি মুস্তফা লুৎফুল্লাহ নাগরিক নেতৃবৃন্দের বক্তব্য শোনেন এবং এব্যাপারে বিকল্প খোজার অনুরোধ জানান।
জেলা নাগরিক কমিটির কার্য নির্বাহী কমিটির সদস্য  প্রফেসর আব্দুল হামিদের নেতৃত্বে সাতক্ষীরা-১ আসনের সংসদ সদস্য এড. মুস্তফা লুৎফুল্লাহ’র সাথে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, আবুল কালাম আজাদ, এড. শেখ আজাদ হোসেন বেলাল, এড. ফাহিমুল হক কিসলু, মাধব চন্দ্র দত্ত, নিত্যানন্দ সরকার, মনিরুদ্দিন, আলীনুর খান বাবুল প্রমুখ। অপর দিকে জাপার সাথে আলোচনা সভায় দলের জেলা সভাপতি শেখ আজাহার হোসেন সাধারণ সম্পাদক আশরাফুজ্জামান আশু প্রমুখ নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। সভায় আগামী ২২ মে সকাল ১০টায় সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন সফল করার আহবান জানান।