সকলেই এক হয়ে বাল্য বিবাহ প্রতিরোধ করতে হবে: মৎস্য প্রতিমন্ত্রী


প্রকাশিত : জুলাই ১৬, ২০১৭ ||

ডুমুরিয়া (খুলনা) প্রতিনিধি: দেশে এখনও বাল্যবিবাহ বন্ধ হয়নি। সরকার এ বিষয়ে যথেষ্ট উদ্যোগ গ্রহন করলেও তা বন্ধ করা সম্ভব হয়নি। কিন্তু এই বাল্য বিবাহ প্রতিরোধ করা এখন অতি জরুরী হয়ে পড়েছে। তাই আসুন আমরা সকলেই একমত হয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা’র স্বপ্ন’কে বাস্তবান করি। শনিবার সকালে ডুমুরিয়া উপজেলার শহীদ জোবায়েদ আলী মিলনায়তনে এনজিও সংস্থা পরিত্রাণ ও উপজেলা প্রশাসন আয়োজিত বাল্য বিবাহ ও স্কুল থেকে ঝরে পড়া রোধে উদ্ভাবনী বিষয়ক এক আলোচনা সভায় মৎস্য ও প্রানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী নারায়ণ চন্দ্র চন্দ (এমপি) এ কথা বলেন। তিনি আরও বলেন- শুধু বাল্য বিবাহ নয়, আমাদের সকল শিশুদের স্কুলমুখী করতে হবে। এখনও অনেক শিশু স্কুলে না গিয়ে শিশুশ্রমে ঝুকে পড়ছে। আবার কেউ কেউ লেখাপড়া শেষ না করেই অকালে ঝরে পড়ছে। বর্তমান সময়ে এইসব সমস্যাই হল প্রধান সমস্যা। আর এই সকল সমস্যা শতভাগ নির্মুল করতে পারলে একটি সুন্দর সমাজ ও সুন্দর দেশ গড়ে উঠবে। খুলনা জেলা প্রশাসক আমিন উল আহসান’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় প্রধানমন্ত্রী’র কার্যালয়’ এ-টু-আই ও ইনোভেশন ফান্ড সার্ভিস প্রকল্পের যুগ্ম-সচিব ও পরিচালক মুস্তাফিজুর রহমান বিশেষ অতিথি’র বক্তৃতায় বলেন- ডিজিটাল পদ্ধতিতে বিবাহ নিবন্ধন ও শিক্ষার্থীদের ডাটাবেইজ তৈরী করতে হবে। আর স্কুলের জন্ম তারিখ অনুসারে কাজী সাহেব বা রেজিষ্টাররা বিবাহ সম্পন্ন করবেন। সভায় আরও বক্তব্যদেন, ডুমুরিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান খান আলী মুনসুর, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ আশেক হাসান, জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা নার্গিস ফতেমা জামিন, প্লান ইন্টার ন্যাশনাল’র তানিয়া নুসরাত জামান, এ-টু-আই’র উপসচিব সাহিদা সুলতানা, পরিত্রাণের পরিচালক মিলন দাস, আশরাফুল রহমান কাজল, ইউপি চেয়ারম্যান খান শাকুর উদ্দিন, শেখ দিদারুল হোসেন দিদার, শেখ আবুল হোসেন, হিমাংশু বিশ্বাস ও রেজোয়ান হোসেন মোল্যা, ইউপি সচিব সিদ্ধার্থ শংকর ব্যানার্জী, কাজী মাওলানা গোলাম মোস্তফা, হিন্দু বিবাহ রেজিষ্টার রতœা রানী সরকার, শিক্ষক বিধান দাস প্রমুখ।