যশোর-সাতক্ষীরা রোডের বাসের ছাদে যুবকের লাশ


প্রকাশিত : জুলাই ৩০, ২০১৭ ||

যশোর প্রতিনিধি: মণিরামপুরের কালিবাড়ি বাসস্টপ থেকে সাতক্ষীরাগামী বাসের ছাদ থেকে ৩২বছর বয়সী এক যুবকের রক্তাক্ত লাশ উদ্ধার হয়েছে। শনিবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে ফায়ার সার্ভিসের একটি দল লাশটি উদ্ধার করে মণিরামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়। লাশের কপালের বামপাশে ও নাকে আঘাতে থেঁতলে যাওয়ার চিহ্ন রয়েছে। লাশের পরিচয় পাওয়া যায়নি। তার সাথে একটি ব্যাগে ভেজা লুঙি ও গেঞ্জি পাওয়া গেছে। স্থানীয়রা ধারণা করছেন, যুবকটি খেটে খাওয়া মানুষ। হয়তো বাইরের কোনো এলাকা থেকে কাজ করে সে বাড়ি ফিরছিল। মণিরামপুর থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। এদিকে বাসের ছাদে লাশ রেখে পালিয়েছে চালক ও হেলপার। যাত্রীরাও ছিল না। প্রত্যক্ষদর্শী ও পরিবহন সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, শনিবার পৌনে ৭টার দিকে সাতক্ষীরাগামী মাশ-আল্লাহ এন্টারপ্রাইজের (ঢাকা মেট্রো-জ-১৪-০২৭৬) নম্বরের গাড়িটি যশোর কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল থেকে ছেড়ে এসে সকাল ৭টা ৩৫ মিনিটের দিকে মণিরামপুর দক্ষিণমাথা বাসস্টপে থামে। বাসটি থামার সাথে সাথে চালক ও হেলপার ছাদে লাশ রয়েছে কথাটি বলে পালিয়ে যায়। বাসের যাত্রীরাও সটকে পড়ে। খবর পেয়ে সকাল ৮টার দিকে থানা পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের উদ্ধারকারী দল ঘটনাস্থলে পৌঁছায়।
স্থানীয়রা বলছেন, ‘মণিরামপুর কলেজ সংলগ্ন মহাসড়কে একটি নিচু খইয়ে গাছের ডাল আছে। যা ছাদ ঘেঁষা। তাতে আঘাত লেগে লোকটার মৃত্যু হতে পারে।
মণিরামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক ডা. রাজিব পাল বলেন, “নিহতের মাথা থেঁতলে গেছে। প্রাথমিকভাবে মনে হচ্ছে, আঘাতজনিত কারণে লোকটার মৃত্যু হয়েছে”।
মণিরামপুর থানার এসআই সাখাওয়াৎ হোসেন বলেন,“লোকটার মাথায় আঘাতে থেঁতলে যাওয়ার চিহ্ন রয়েছে। এখানে অন্য কিছু ভাববার সুযোগ নাই।” লাশ মর্গে নেওয়া হবে কি না সেটা এখনও ঠিক হয়নি বলে জানান এই কর্মকর্তা।