জামায়াতের শহিদুল চৌকিদারের হাত থেকে রক্ষা পেতে চান নেবাখালির মঞ্জুয়ারা


প্রকাশিত : জুলাই ৩০, ২০১৭ ||

নিজস্ব প্রতিনিধি: সদরের নেবাখালির মঞ্জুয়ারা ও তার স্বামী সাজ্জাত আলি জামায়াত ও শিবিরের ক্যাডারদের হাত থেকে রক্ষা পেতে চান। মঞ্জুয়ারা বলেন, তিনি তার পৈত্রিক জমিতে যেতে বাধাগ্রস্ত হচ্ছেন জামায়াতের সদস্য চৌকিদার শহিদুল ও তার বোন বিলকিস দ্বারা। এই শহিদুল নিরীহ মানুষকে জামায়াত শিবির বানিয়ে পুলিশকে মিথ্যা তথ্য দিয়ে তাদের বিরুদ্ধে মামলা করে হয়রানি করছেন। এই হয়রানির শিকার তিনি ও তার স্বামীও হয়েছেন বলে জানান তিনি। মিথ্যা অভিযোগে তাকে ও তার স্বামীকে জেল খাটতে হয়েছে বলেও তিনি উল্লেখ করেন।
মঞ্জুয়ারা বেগম শনিবার সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে একথা বলেন।
লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, তার কোনো ভাই না থাকায় ১৯৮৫ সাল থেকে তার হলুদ ও ঝাল ব্যবসায়ী স্বামী সাজ্জাত আলি শ্বশুর বাড়িতে থেকে পৈত্রিক জমিজমা দেখাশুনা করে আসছেন। তিনি বলেন, কোনো কারণ ছাড়াই মঞ্জুয়ারার চাচাতো ভাই শহিদুল চৌকিদার ও তার বোন বিলকিস তাদের (মঞ্জুয়ারাদের) বাড়িতে মারধর করতে যায় প্রায়ই। তাদের আক্রোশে পড়ে তারা এখন বাড়িছাড়া হয়েছেন দাবি করে মঞ্জুয়ারা বলেন চৌকিদার শহিদুল প্রভাব সৃষ্টি করে তাদের বিরুদ্ধে জিআর ৪৭০/১৭, ৮৯৫/১১ ও ৩০৩/১৫ নম্বরের নাশকতার মামলা করে হয়রানি করছে। তিনি বলেন আমরা খুবই গরিব। সহায় সম্বল বলতে তেমন কিছু নেই। তার চাচা শেখ আশরাফ আলি একজন জামায়াতের লোক। শহিদুল ও বিলকিস তার সাথে একজোট হয়ে মঞ্জুয়ারার পৈত্রিক ২২শতক ভিটাবাড়িতে যেতে বাধা দিচ্ছে। ওই জমিতে গেলে আমাদের বিরুদ্ধে শহিদুল আরও মামলা দেবে বলে হুমকি দিয়ে আসছে। মঞ্জুয়ারা এসবের প্রতিকার দাবি করেন। একই সাথে তিনি নিজেদের নিরাপত্তার দাবিও জানান।