সুন্দরবনে ফের বনদস্যু বাহিনীর তৎপরতা শুরু


প্রকাশিত : আগস্ট ৭, ২০১৭ ||

শ্যামনগর (সদর) প্রতিনিধি: সাতক্ষীরা রেঞ্জ পশ্চিম সুন্দরবনে বেশ কিছুদিন বনদস্যু বাহিনীর অত্যাচার বন্ধ থাকার পর আবারও নতুন করে তৎপরতা শুরু হয়েছে। ফলে জেলে বাওয়ালীদের মধ্যে ফের আতঙ্ক শুরু হয়েছে। র‌্যাবের হাতে অধিকাংশ বনদস্যু বাহিনী আত্মসমর্পনের পরে সুন্দরবনে বিগত ২ মাস সার্বিক পরিবেশ বনজীবীদের অনুকূলে ছিল। কিন্তু বিভিন্ন বাহিনী হতে (যারা আত্মসমর্পন করেনি) দলছুট সদস্যরা একত্রিত হয়ে নতুন বাহিনী গঠন করে বনজীবিদের উপর হামলা করে জিম্মি ও মুক্তিপণ আদায় করছে।
গত পরশু সুন্দরবনে হাড়িভাঙ্গা খালে মাছ ধরার সময় সদ্য বিলুপ্ত রবিউল বাহিনীর দলছুট সদস্য সাহেব আলী অতর্কিত হামলা চালিয়ে হরিনগর গ্রামে মফিয়ার মিস্ত্রীর ছেলে হাবিবুর ও ইসহাককে জিম্মি করে। এ সময়ে একই গ্রামের হাবিবুর মল্যার ছেলে তাহের ও মোর্তজা মোড়লের ছেলে মোস্তফাকে বেধড়ক মারপিট করে গুরুতর জখম করে। বর্তমানে তারা স্থানীয় ক্লিনিকে চিকিৎসাধীন। জিম্মিকৃত ২ জেলের কাছে মুক্তিপনের জন্য ৪ লাখ টাকা দাবি করেছে সাহেব আলী বাহিনী।
সুন্দরবনে সাহেব আলী বাহিনী ছাড়া অপর বনদস্যু জোনাব বাহিনীর নেতৃত্বাধীন তারই ছোট ভাই নুর ইসলাম সুন্দরবনে বনজীবিদের উপরে হামলা অব্যহত রেখেছে। জোনাব বাহিনীর প্রধান জোনাব আলী বর্তমানে ভারতে দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা জেলার কুমির মারি এলাকায় বসবাস করছে বলে সূত্রে জানা যায়। সার্বিক বিষয়ে কদমতলা স্টেশন কর্মকর্তা মো. নাছিরউদ্দীন সার্বিক ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, সুন্দরবন আবারো অশান্ত হয়ে উঠছে।