মুক্তামনির হাতে অপারেশন শুরু


প্রকাশিত : আগস্ট ১২, ২০১৭ ||

পত্রদূত ডেস্ক: বিরল রোগে আক্রান্ত মুক্তামনির হাতের অপারেশন শুরু হয়েছে। শনিবার সকাল পৌনে ৯টার দিকে চিকিৎসকরা অপারেশন থিয়েটারে প্রবেশ করেন। এর আগে সকাল সাড়ে ৭টা থেকে তার অপারেশনের প্রস্তুতি নিতে থাকেন ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি বিভাগের ডাক্তারা।

গত শুক্রবার ঢামেক হাসপাতালের বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইউনিটের সমন্বয়কারী ডা. সামন্ত লাল সেন জানিয়েছিলেন ‘আমাদের টার্গেট, তার হাত না কেটে ফেলা। কারণ কোনও প্লাস্টিক সার্জনই কারও অঙ্গ কেটে ফেলার পক্ষে নন। মুক্তামনির হাত থেকে প্রথমে আমরা অতিরিক্ত মাংসপিণ্ড ফেলে দেব। কিন্তু তাতেও যদি হাত ঠিক করা না যায় তাহলে তার জীবন বাঁচাতে বাধ্য হয়েই আমাদেরকে প্রয়োজনীয় (হাত কেটে ফেলার মতো) সিদ্ধান্ত নিতে হবে। তবে সব সিদ্ধান্ত হবে অপারেশন থিয়েটারে পরিস্থিতি কী হয় সে বিবেচনা করে।’

তিনি জানান, ‘শনিবার সকাল আটটা থেকে সাড়ে আটটার মধ্যে মুক্তামনির হাতে অপারেশন শুরু করা হবে।’

প্রসঙ্গত, গত ১২ জুলাই ঢামেক হাসপাতালের বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইউনিটে ভর্তি করা হয় মুক্তামনিকে। এতোদিন মুক্তামনির রোগটিকে বিরল রোগ বলা হলেও গত শনিবার তার বায়োপসি করার পর জানা গেছে মুক্তামনির রক্তনালীতে টিউমার হয়েছে যেটাকে চিকিৎসা বিজ্ঞানে হেমানজিওমা বলা হয়ে থাকে।

ডা. সামন্ত লাল সেন বলেন, ‘বায়োপসি প্রতিবেদন হাতে পেয়েই মুক্তামনির চিকিৎসায় গঠিত মেডিক্যাল বোর্ড শনিবারে অপারেশনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে।’

উল্লেখ্য ঢামেক বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইউনিটের সমন্বয়ক ডা. সামন্ত লাল সেন, বর্তমান পরিচালক অধ্যাপক আবুল কালাম আজাদ, অধ্যাপক সাজ্জাদ খোন্দকার, অধ্যাপক রায়হানা আউয়াল, দুইজন সহযোগী অধ্যাপক, সাত জন সহকারী অধ্যাপকসহ অন্যান্য চিকিৎসক এবং ঢামেক হাসপাতালের অ্যানেসথেশিয়াস বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ডা. মোজাফফর হোসনসহ আরেকজন এবং বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইউনিটের অ্যানেসথেশিয়া বিভাগের চারজন চিকিৎসক এই অস্ত্রোপচারে অংশ নিচ্ছেন।