বঙ্গবন্ধুর শাহাদাত বার্ষিকীতে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে জাতীয় শোকদিবস শোককে শক্তিতে পরিণত করার দৃপ্ত প্রত্যয়


প্রকাশিত : আগস্ট ১৬, ২০১৭ ||

গভীর শ্রদ্ধা জানিয়ে শোককে শক্তিতে পরিণত করার দৃপ্ত প্রত্যয়ে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে পালিত হলো জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪২তম শাহাদাত বার্ষিকী জাতীয় শোক দিবস। এ সময় সাংবাদিক নেতারা বলেন বাঙ্গালি হিসাবে শ্রেষ্ঠত্বের অধিকারী বঙ্গজ সন্তান শেখ মুজিবের জন্ম না হলে আমরা স্বাধীন বাংলাদেশ পেতাম কিনা সন্দেহ রয়েছে। তারা এই নন্দিত জননেতার প্রতি সর্বাত্মক ভক্তি ও শ্রদ্ধা জানিয়ে বলেন তার আদর্শের পথই বাংগালির পথ। এই পথ ধরে আমাদের যেতে হবে বহুদুর।
মঙ্গলবার সকালে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের হলরুমে প্রেসক্লাব সভাপতি আবুল কালাম আজাদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় সকল সাংবাদিক জাতির জনকের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে উঠে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করেন।
দীর্ঘ আলোচনায় অংশ নিয়ে তারা বলেন যে মানুষটি গনতন্ত্রের জন্য জীবনব্যাপী সংগ্রাম করেছেন, একটি স্বাধীন ভূখন্ডের জন্য যে মানুষটি বারবার জেল জুলুম ভোগ করেছেন, পাকিস্তানিদের নাগপাশ ও শৃংখল থেকে বেরিয়ে এসে যে মহামানব আগরতলা ষড়যন্ত্রের মামলায় ফাঁসি কাষ্ঠে ঝুলতে এতোটুকু ভীত হননি সেই মানুষটিকে সপরিবারে হত্যা করেছে তারাই যারা বাঙ্গালি যারা তার আশপাশে থেকেছেন। তাদের প্রতি জাতি চিরকালই ঘৃণা ছুঁড়ে দেবে মন্তব্য করে সাংবাদিক নেতারা বলেন ৭৫ এর ১৫ আগস্ট যারা তাকে হত্যা করে হাত রাঙ্গিয়েছিল , তাদেরকে বিশ্বাসঘাতক মোশতাক সরকার পুরস্কার দিয়ে বিদেশে আয়েশ করতে পাঠিয়েছিল। এমনকি বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার যাতে না হতে পারে সেজন্য ইনডেমনিটি বিল পাস করে আমাদের বিবেককে অবরুদ্ধ করে রাখা হয়েছিল। তারপরও দেরিতে হলেও বঙ্গবন্ধু হত্যাকারীরা ফাঁসির রজ্জুতে ঝুলে শাস্তি পেয়েছে। যারা এখনও শাস্তি পায়নি তাদেরকে অনতিবিলম্বে দেশে ফিরিয়ে এনে বিচার বাস্তবায়ন করা হবে বলে সরকারের প্রতিশ্রুতি রয়েছে।
সিআইএ , মার্কিন সা¤্রাজ্যবাদ তাকে হত্যা করেছিল। পাকিস্তানের প্রেতাত্মারা তাকে হত্যা করেছিল। উচ্চাভিলাসী উচ্ছৃংখল সেনা অফিসাররা তাকে হত্যা করেছিল । আর এ্ই হত্যায় হাত মিলিয়েছিল সেই সব বিশ্বাসঘাতক যারা বরাবরই রাজনৈতিক ভোল ধরে বঙ্গবন্ধুর পাশে থেকে সুবিধা নেওয়ার চেষ্টা করেছে। গনতন্ত্র, সমাজতন্ত্র, ধর্মনিরপেক্ষতা ও জাতীয়তাবাদ এই চার মূলনীতির ওপর অবিচল আস্থা রেখে বঙ্গবন্ধু আজীবন সংগ্রাম করেছেন বলে তারা মন্তব্য করেন।
বঙ্গবন্ধু একটি ইতিহাস, একটি সংগ্রামের নাম উল্লেখ করে সাংবাদিক নেতারা আরও বলেন ১৯৪৮ এ ঢাকার কার্জন হলে মোহাম্মদ আলির জিন্নাহর ‘ উর্দু হবে পাকিস্তানের রাষ্ট্রভাষা’ এই বক্তব্যের তীব্র বিরাধীতাকারীদেরই একজন শেখ মুজিব । এমন ঐতিহাসিকতথ্য উল্লেখ করে তারা বলেন বঙ্গবন্ধু ধাপে ধাপে ভাষা আন্দোলন, ৫৪এর যুক্তফ্রন্ট সরকার গঠনের আন্দোলন, আইয়ুবের সামরিক শাসন বিরোধী আন্দোলন, ৬০ এর গনতন্ত্রের জন্য আন্দোলন, ৬২ এর ছাত্র আন্দোলন, ৬৬ এর ছয় দফার আন্দোলন, ৬৯ এর গন আন্দোলন এবং ১৯৭০ এর নির্বাচনে নেতৃত্ব দিয়ে পাকিস্তানিদের ভিত নাড়িয়ে দিয়েছিলেন। এরপর ১৯৭১ এ মুক্তিযুদ্ধের ডাক দিয়ে তিনি পাক হানাদারদের হাতে গ্রেফতার হয়ে অন্তরীন হন। অথচ বাংলাদেশের প্রতিটি মানুষ তাদের প্রিয় নেতার ‘এবারের সংগ্রাম মুক্তির সংগ্রাম, এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম’ এই চিরন্তন ঘোষনাকে সামনে রেখে খালি হাতে মুক্তিযুদ্ধে নেমেছিল। রক্তক্ষয়ী সংগ্রামের পর বহু কাংখিত মহান বিজয় দিবস সূচিত হয়েছিল। আর কাপুরুষের মতো আত্মসমর্পন করেছিল পাকিস্তানি জেনারেলরা।
সাংবাদিক বক্তারা আরও বলেন ‘ মুক্তিযুদ্ধ শেষে আমরা বঙ্গবন্ধুকে ফিরে পেয়েছিলাম নতুন মাত্রার এক মহান নেতা হিসাবে। তিনি নেমেছিলেন যুদ্ধ বিধ্বস্ত বাংলাদেশকে নতুন ভাস্কর্যে গড়ে তুলতে। কিন্তু ঘাতকরা তার পিছু ছাড়েনি। পাকিস্তানিদের প্রেতাত্মারা তাকে সপরিবারে হত্যার পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করলো। চির সংগ্রামী ও সাহসী জাতি বাঙ্গালি জাতির ললাটে লেপে দিল কলংক তিলক’। আজ আমাদের সেই দিন এসেছে যেদিন আমরা শোককে শক্তি আর সাহসে পরিনত করে নতুন বাংলাদেশ গড়ে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়ন করতে এক ও অভিন্ন পথে অগ্রসর হবো।
ইন্ডিপেন্ডেন্ট টিভির আবুল কাসেমের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় শোক ও শ্রদ্ধা জানিয়ে পর্যায়ক্রমে বক্তব্য রাখেন সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি অধ্যক্ষ আবু আহমেদ, দৈনিক দৃষ্টিপাত সম্পাদক জিএম নুর ইসলাম, প্রেসক্লাব সম্পাদক আবদুল বারী, সাবেক সভাপতি সুভাষ চৌধুরী, সাবেক সভাপতি মো. আনিসুর রহিম, দৈনিক প্রথম আলোর কল্যাণ ব্যানার্জি, প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি জিএম মনিরুল ইসলাম মিনি, বাসস এর এড. অরুন কুমার ব্যানার্জি, দৈনিক দক্ষিনের মশাল সম্পাদক অধ্যক্ষ আশেক ই এলাহি, প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারন সম্পাদক মিজানুর রহমান, সাবেক সাধারন সম্পাদক মমতাজ আহমেদ বাপী, সাবেক সাধারন সম্পাদক এম কামরুজ্জামান, প্রেসক্লাবের সহ সভাপতি কালিদাস রায়, প্রেসক্লাবের যুগ্মসাধারন সম্পাদক গোলাম সরোয়ার, চ্যানেল ২৪ এর মনিরুল ইসলাম মনি, বাংলা নিউজ ২৪ এর শেখ তানজির আহমেদ প্রমুখ সাংবাদিক।