ব্রহ্মরাজপুরে শোক দিবসের আলোচনা


প্রকাশিত : আগস্ট ২৪, ২০১৭ ||

 

নিজস্ব প্রতিনিধি: মুজিব মানেই বাংলাদেশ। মুজিব মানেই লাল সবুজের পতাকা। বঙ্গবন্ধু মানে সোনার বাংলা। মহান স্বাধীনতার স্থপতি জাতির জনকের জন্যই পেয়েছি স্বাধীন একটি দেশ। ওরা পাকিস্থানের দোষর। তাইতো স্বপরিবারে বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করেই চেয়েছিল সবকিছু স্তব্ধ করতে। কিন্তু পারেনি বাংলার মানুষের মুজিবীয় ভালবাসার জন্য। আবারও আওয়ামী লীগ সরকারকে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় এনে সাম্প্রদায়িকতা রক্ষা করতে হবে। সকলকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে নৌকার জন্য। সব ভেদাভদ ভুলে এক কাতারে শামিল হতে হবে। নইলে এদেশে আবারও সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদের উত্থান হবে। ২০১৩ সালের পুনরাবৃত্তি যেন না হয় এই বাংলায়। সকলকে সজাগ থেকে মিলেমিশে কাজ করার উদাত্ত আহবান জানান বক্তারা। বুধবার বিকেলে সাতক্ষীরা সদর উপজেলার ব্রহ্মরাজপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে ব্রহ্মরাজপুর বাজার বণিক সমিতির আয়োজনে বঙ্গবন্ধুর ৪২তম শাহাদাৎ বার্ষিকীর আলোচনা সভা ও দোয়া অনুষ্ঠানে বক্তারা এসব কথা বলেন। ব্রহ্মরাজপুর বাজার বণিক সমিতির সভাপতি আলহাজ্ব আব্দুর রশিদ সরদারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও জেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব নজরুল ইসলাম। বিশেষ অতিথি ছিলেন সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারমান ও জেলা আ’লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আলহাজ্ব আসাদুজ্জামান বাবু, সদর উপজেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহাজান আলী, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শেখ আব্দুর রশিদ, সাংগঠনিক সম্পাদক গণেশ চন্দ্র মন্ডল, কৃষি বিষয়ক সম্পাদক মনিরুল ইসলাম মাসুম, ধুলিহর ইউপি চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান বাবু ও ব্রহ্মরাজপুর ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি নিলীপ মল্লিক। এছাড়া অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ব্রহ্মরাজপুর বাজার বণিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক শেখ আব্দুছ ছালাম, ধুলিহর যুবলীগ সভাপতি আজাহারুল ইসলাম, শেখ আব্দুল আহাদ প্রমূখ। দোয়া ও মোনাজাত পরিচালনা করেন ব্রহ্মরাজপুর বাজার জামে মসজিদের ইমাম মোজাম্মেল হক। অনুষ্ঠানের শেষে অতিথিবৃন্দ দোয়া অনুষ্ঠানের মিষ্টি বিতরন করেন। সমগ্র অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন ৬নং ওয়ার্ড আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কুদ্দুস।