আলিপুরে জমি জমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে দুগ্রুপের সংঘর্ষে আহত ২ ॥ পুলিশ সুপারের হস্তক্ষেপ কামনা


প্রকাশিত : সেপ্টেম্বর ১৩, ২০১৭ ||

 

নিজস্ব প্রতিনিধি : সাতক্ষীরায় জমি জমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে দুগ্রুপের সংঘর্ষে আহত ২। মঙ্গলবার বিকালে আলিপুর ইউনিয়নের দক্ষিণ বুলারআটি গ্রামে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে আহতরা হলেন, আলিপুর বুলারআটি গ্রামের মৃত এজহার আলী মল্লিকের ছেলে শহিদুল ইসলাম, তকিম গাইনের ছেলে ইমাদুল ইসলাম। বর্তমানে তাদেরকে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। উল্লেখ্য যে, গত ইংরেজি ২৫ জুলাই ২০১৪ সালে দেবহাটার বহেরা মৌজায় এসএ ৯৭৯ খতিয়ানে, ডিপি ১০৭, ১৩৪৪ দাগে ১৮শতক জমি ক্রয় করার শর্তেও আসামীরা জমিটি জোরপূর্বক দখলসহ বিভিন্ন ভাবে ষড়যন্ত্র করতে থাকে। বিষয়টি নিয়ে স্থানীয় পর্যায়ে মিমাংশা হলেও তারা তা না মেনে জীবননাশসহ বিভিন্ন হুমকি ধামকি দিতে থাকে। বিষয়ে সাতক্ষীরা সদর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করা হয়েছিল। ডায়েরী নং৯৯৬/২৫..২০১৪।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, সদর উপজেলার আলিপুর ইউনিয়নের দক্ষিণ বুলারআটি গ্রামের জমি জমা সংক্রান্ত বিরোধকে কেন্দ্র করে দুগ্রুপের দীর্ঘ দিন ধরে বিরোধ চলছিল। বিজ্ঞ আদালতেও ব্যাপারে একটি মামলা চলছিল। আদালত সম্প্রতি জমির মুল মালিক ইদ্রিস আলীর পক্ষে রায় ঘোষণা করে। ইদ্রিস আলীর নিকট থেকে মো. এবাদুল্লাহ আল ফারুক ৯শতক জমি ক্রয় করেন। কিন্তু ২য় পক্ষ রায় না মেনে জোর পূর্বক জমি দখলের পায়তারা চালাচ্ছে এবং বিভিন্ন ভাবে চাঁদা দাবী জীবননাশের হুমকি দিয়ে যাচ্ছে।

এব্যাপারে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় সাতক্ষীরা সদর থানায় একটি অভিযোগ দেওয়া হয়েছে। অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, ভুমিদস্যু সন্ত্রাসী বাহিনী মাহমুদপুর নাটাপাড়া গ্রামের গোলাম হোসেনের ছেলে আলা উদ্দিন, দক্ষিণ বুলারআটি গ্রামের ইমাম হোসেনের ছেলে আব্দুর রহমান, মৃত আহারামদ্দিন সরদারের ছেলে আবুল কাশেম, ইমাম হোসেন, মৃত দুখে দফাদারের ছেলে আব্দুল মাজেদসহ আসামীরা মো. এবাদুল্লাহ আল ফারুকের খরিদকৃত জমি দখলের পায়তারা করছে। জমির প্রকৃত মালিকরা জমিতে গেলে খুন জখম করার হুমকি দিচ্ছে। মঙ্গলবার বিকালে উক্ত জমিতে থাকা এবাদুল্লাহ আল ফারুকের জমিতে থাকা মেশিন ঘরটি আসামীরা ভাঙচুর করে এবং বাধা দেওয়ায় শহিদুল ইসলাম ইমাদুল ইসলামকে রক্তাক্ত জখম করে। এসময় স্থানীয়রা এসে আহতদের উদ্ধার করে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করে।

এব্যাপারে সাতক্ষীরা পুলিশ সুপারের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছে অসহায় পরিবারটি।