ক্রিকেটের যে নিয়ম পাল্টে যাচ্ছে দক্ষিণ আফ্রিকা-বাংলাদেশ সিরিজে


প্রকাশিত : সেপ্টেম্বর ২৬, ২০১৭ ||

 

এ বছরেই ক্রিকেটের অনেক নিয়ম পাল্টানোর সিদ্ধান্ত নিয়ে রেখেছিল আইসিসি। যার ব্যবহার হতে যাচ্ছে আগামী ২৮ সেপ্টেম্বর থেকে। অর্থাৎ বাংলাদেশের বিপক্ষ দক্ষিণ আফ্রিকার প্রথম টেস্টেই চালু হবে নতুন নিয়ম। এর আওতায় পড়বে শ্রীলঙ্কা ও পাকিস্তানের মধ্যেকার টেস্টও।

একবার দেখে নেওয়া যাক নতুন এই নিয়ম:

১. ব্যাটের আকার

ব্যাট ও বলের ভারসাম্য রাখতেই ব্যাটের কোনা ও পুরুত্ব বেঁধে দিয়েছে আইসিসি। যদিও দৈর্ঘ্য ও প্রস্থ নিয়ে কোনও বিধি নিষেধ নেই। তবে ব্যাটের কোনার পুরুত্ব ৪০ মিলিমিটারের বেশি হতে পারবে না। আর গভীরতা থাকবে সর্বোচ্চ ৬৭ মিলিমিটার। এসব নিয়ম চোখে দেখতে ব্যাট গজ ব্যবহার করবেন আম্পায়াররা।

২. আচরণ নিয়ন্ত্রণে লাল কার্ড দেখানোর ব্যবস্থা

বিধিবহির্ভুত আচরণে এখন মাঠ থেকে বের করে দেওয়ার নিয়ম চালু করেছে আইসিসি। তবে সে ক্ষেত্রে আইসিসি বিধি অনুযায়ী-৪ মাত্রা ভঙ্গ করলেই কেবল এটি প্রযোজ্য হবে। যা মূলত গুরুতর ও স্পর্শকাতর অপরাধের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য। ১ থেকে মাত্রা-৩ এর অপরাধগুলোর ক্ষেত্রে বিধি অনুসারে শাস্তি হবে।

৩. ডিসিশন রিভিউ সিস্টেমে পরিবর্তন

সাধারণত ৮০ ওভারে শেষে নতুন করে ‍দুটি রিভিউ যোগ হতো। এখন আর সেটি থাকছে না। প্রতিটি ইনিংসে মাত্র দুটি রিভিউ বরাদ্দ থাকবে সবার ক্ষেত্রে। এখন থেকে টি-টোয়েন্টিতেও ডিআরএস ব্যবহার করবে আইসিসি।

৪. রান আউটের ক্ষেত্রে নতুন নিয়ম

এখনকার নিয়মে রান নেওয়ার সময় কোনও ব্যাটসম্যান ক্রিজের মধ্যে ঢোকার পরও যদি তার ব্যাট ও দুই পা শূন্যে থাকে তা হলে তাকে রানআউট দেওয়া হয়। কিন্তু নতুন নিয়মে একবার ব্যাটসম্যান ক্রিজের মধ্যে ঢুকে গেলেই হবে। এরপর ব্যাট বা পা শূন্যে থাকলেওতাকে আর রানআউট দেওয়া যাবে না। স্টাম্পডের ক্ষেত্রেও একই নিয়ম মানা হবে।

৫. বাউন্ডারি ক্যাচের ক্ষেত্রে থাকছে পরিবর্তন

আগে বাউন্ডারির বাইরে শূন্যে ক্যাচ ধরলেও সেটিকে আউট ধরা হতো। এখন আর সেটি হচ্ছে না। আউট হতে হলে বান্ডারির মধ্যেই প্রথমে বল ধরে ছুড়ে ফেলতে হবে। তা নাহলে সেটিকে বাউন্ডারি হিসেবেই ধরা হবে।

৬. ফিল্ডার অথবা উইকেটরক্ষকের হেলমেটে বল লাগলে কী হবে?

এখন থেকে ফিল্ডার অথবা উইকেটরক্ষকের হেলমেটে লেগে দিক পরিবর্তন করা বলেও আউট ধরা হবে। রান আউট, স্টাম্পড, ক্যাচ সবগুলোই এখন ধরা হবে এর আওতায়।