আশাশুনির পাইথালীতে নিয়োগ কেন্দ্রিক চাঁদা না দেওয়ায় প্রধান শিক্ষক রক্তাক্ত জখম


প্রকাশিত : অক্টোবর ৮, ২০১৭ ||

 

আশাশুনি ব্যুরো: আশাশুনির পাইথালী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে নৈশপ্রহরী নিয়োগের উৎকোচের টাকা থেকে চাঁদা না দেওয়ায় প্রধান শিক্ষক আরিফুল ইসলামকে পিটিয়ে আহত করেছে হত্যা মামলার আসামী আলতাফ সানা। প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানাগেছে, উপজেলার পাইথালী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সম্প্রতি নৈশপ্রহারী কাম অফিস সহকারী পদে নিয়োগ পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। প্রচার রয়েছে উল্লেখিত পদে বিভিন্ন স্কুল থেকে নিয়োগ সংক্রান্ত ব্যাপক উৎকোচ লেনদেন হয়েছে। এমন প্রচারের ভিত্তিতে বুধহাটা ইউপি সদস্য ও হত্যা মামলাসহ একাধিক মামলার আসামী পদ্মবেউলা গ্রামের মৃত গোলাম রহমান সানার পুত্র আলতাফ সানা শনিবার সকালে তার বাহিনী নিয়ে পাইথালী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে হাজির হয়। প্রধান শিক্ষকের রুমে ঢুকেই নিয়োগ কেন্দ্রিক উৎকোচের টাকা থেকে মোটা অংকের চাঁদা দাবি করে। প্রধান শিক্ষক পদ্মবেউলা গ্রামের মৃত শুকুর সরদারের পুত্র আরিফুল ইসলাম (৫০) বলেন, নিয়োগে টাকা লেনদেন হয়েছে কি না তা আমার জানা নেই। হয়ে থাকলেও উপজেলা পরিষদের নিয়োগ বোর্ডের অন্য কেউ জানতে পারে। আমি কোন টাকা দেন দেন করি নেই বা দিতেও পারব না। তখন আলতাফ সানা হুমকি ধামকি দিয়ে সন্ধ্যার ভেতরে টাকা না দিলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে চলে যায়। ওই দিন সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে প্রধান শিক্ষক আরিফুল ইসলাম মায়ের ঔষধ নিতে পাইথালী বাজারে গেলে আলতাফ সানা ও তার বাহিনী নিয়ে প্রধান শিক্ষকের গতিরোধ করে লোহার রড দিয়ে স্বজরে হত্যার উদ্দেশ্যে মাথায় আঘাত করে। সাথে সাথে রক্তাক্ত জখম অবস্থায় প্রধান শিক্ষক মাটিতে লুটিয়ে পড়লে আলতাফ সানা লাথি, কিল-ঘুষি ও পায়ের জুতা খুলে শতশত লোকের সামনে বেদম মারপিট করে থানা পুলিশ না করার জন্য হুমকি ধামকি দিয়ে চলে যায়। স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে প্রথমে আশাশুনি হাসপাতালে ভর্তি করে। অবস্থার অবনতি হলে তাকে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে বলে তার পরিবার সূত্রে জানাগেছে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত আলতাফ সানাসহ তার সহযোগিদের বিরুদ্ধে থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছিল বলে জানাগেছে।