পাটকেলঘাটায় কলেজ ছাত্রের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ


প্রকাশিত : নভেম্বর ২৯, ২০১৭ ||

 

 

মনিরুল ইসলাম মনি: বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে দাখিল পরীক্ষার্থী এক ছাত্রীর সঙ্গে অনৈতিক সম্পর্ক স্থাপন করার সময় জনতার তাড়া খেয়ে পালিয়ে গেছে এক কলেজ ছাত্র। এ সময় সে ফেলে গেছে তার পরিহিত লুঙ্গি, জামা, জুতা, মোবাইল ফোন ও কনডম। গত ২১ নভেম্বর রাত ১০টার দিকে পাটকেলঘাটা থানাধীন বড়বিলা গ্রামে এ ঘটনা ঘটলেও ওই ভিকটিম পরিবার কোন আইন সহায়তা পাননি। স্কুল ছাত্রীর মা জানান, তার মেয়ে স্থানীয় মাদ্রাসা থেকে দাখিল পরীক্ষার্থী। একই গ্রাম বড়বিলার ইনসাফ আলীর ছেলে আব্দুল¬াহ (১৭) পাটকেলঘাটা কলেজের এইচএসসি পরীক্ষার্থী। একই এলাকায় বসবাসের সূত্রে আব্দুল¬াহ’র সাথে তার মেয়ের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। আব্দুল¬াহ বিয়ের  প্রলোভন দেখিয়ে গত ২১ নভেম্বর রাত ১০টার দিকে মেয়েকে পার্শ্ববর্তী শফিকুলের পুকুর পাড়ে নিয়ে ধর্ষণ করে। স্থানীয়রা জানতে পারায় আব্দুল¬াহ তার পরিহিত লুঙ্গি, জামা, জুতো, মোবাইল ফোন ও একটি ব্যবহৃত কনডোম ফেলে পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় স্থানীয়রা পরদিন মেয়েকে আব্দুল¬ার বাড়িতে তুলে দেয় বিয়ের জন্য। পরে স্থানীয় চিকিৎসক ও সাংবাদিক হেলালউদ্দিনের আশ্বাসে তাকে বাড়িতে ফিরিয়ে আনা হয়। স্থানীয়রা জানান, এ ঘটনায় শুক্রবার সন্ধ্যায় বড়বিলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের এক শালিসি বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। মেয়েটি নাবালিকা ও ছেলে নাবালক হওয়ায় বৈঠকে বিষয়টি নিয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে যাওয়ার জন্য সিদ্ধান্ত হয়। ঘটনা বিলম্বিত হওয়ায় থানায় মামলা নেওয়া নিয়ে সংশয় দেখা দিয়েছে। উৎকণ্ঠা বাড়ছে তার পরিবারের সদস্যদের মধ্যে। তবে এ ব্যাপারে জানতে চাইলে আব্দুল¬া’র ভাই হামিদ জানান, তিনি এ বিষয়ে কোন মন্তব্য করবেন না। পাটকেলঘাটা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোল¬া জাকির হোসেন জানান, অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।