আশাশুনি টু ঘোলা সড়কটির বেহাল দশা: সংস্কার দাবি


প্রকাশিত : ডিসেম্বর ৯, ২০১৭ ||

শেখ হেদায়েতুল ইসলাম: আশাশুনি টু ঘোলা সড়কটি বেহাল দশায় পরিণত হয়েছে। উপজেলার আশাশুনি সদর হতে শ্রীউলা ইউনিয়নের ঘোলা পর্যন্ত সড়কটি চলাচলে অনুপোযোগি হয়ে পড়েছে। সংস্কারের অভাবে রাস্তাটির বেশিরভাগ অংশই যেন এখন মরণ ফাঁদ। সড়কটিতে যাত্রীবাহী বাস, মিনিবাস, ট্রাক, নছিমন, করিমন, ভাড়ায় চালিত মোটর সাইকেলসহ ছোট বড় বিভিন্ন ধরনের যানবাহন চলাচল করে থাকে। বর্তমানে এ সড়ক দিয়ে প্রতিনিয়ত হাজার হাজার লোক আশাশুনি, কালিগঞ্জ, শ্যামনগর ও সাতক্ষীরা জেলা সহ বিভিন্ন এলাকায় যাতায়াত করে থাকে। সড়ক সংলগ্ন কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনার মধ্যে রয়েছে আশাশুনি বাসস্ট্যান্ড, হাড়িভাঙ্গা বাজার ও মৎস্যসেট, মহিষকুড় মৎস্যসেট, নাকতাড়া-কালিবাড়ী বাজার, মাড়িয়ালা মৎস্য সেট ও হিজলিয়া বাস স্ট্যান্ড ও হাট। এসব বাজার ও মৎস্য সেটে প্রতিদিন লক্ষ লক্ষ টাকার বেঁচাকেনা হয়ে থাকে। সড়কটি ব্যবহার করেই ব্যবসায়ীরা দক্ষিণাঞ্চলের সাদা-সোনা খ্যাত চিংড়ি মাছসহ বিভিন্ন মালামাল পরিবহন ও আমদানী-রপ্তানী করে থাকে। যার মাধ্যমে সরকার মোটা অংকের রাজস্ব অর্জন করে থাকে। কিন্তু উপজেলার গুরুত্বপূর্ণ এ সড়কটির বিভিন্ন জায়গা দীর্ঘদিন থেকে খানা-খন্দকে পরিনত হয়ে আছে। সরেজমিনের ঘুরে দেখাগেছে, ১৮ কি. মি. এ সড়কের বিভিন্ন জায়গায় বড় বড় গর্ত হয়ে রয়েছে। ফলে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছে এলাকাবাসী। এব্যাপারে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে জানাগেছে, ১৮ কি. মি. রাস্তার ভিতর নাকতাড়া কালিবাড়ী বাজার থেকে কলিমাখালী পর্যন্ত পৌনে ৩ কি. মি. রাস্ত এবছর কার্পেটিং করা হয়েছে। বাকী ১৫ কি. মি. রাস্তা সংস্কারের জন্য উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষ বরাবর প্রজেক্ট পাঠানো হয়েছে। প্রজেক্টটি পাশ হলে ২০১৮ সালে রাস্তটির কার্পেটিং সম্পন্ন করা সম্ভব হবে। বেহাল দশায় পতিত হওয়া ঘোলা হতে আশাশুনি সড়কটি পুন:সংস্কার করার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন ভুক্তভোগী এলাকাবাসি।