সহায়ক সরকারের অধীনেই আগামী নির্বাচন হতে হবে: মঈন খান


প্রকাশিত : January 6, 2018 ||

 

সহায়ক সরকারের অধীনেই আগামী নির্বাচন হতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আব্দুল মঈন খান। তিনি বলেন, ‘নির্বাচনের ফলাফলে স্বার্থ থাকবে না এমন একটি সহায়ক সরকারের অধীনেই আগামী নির্বাচন হতে হবে। আসলে আমার কাছে রাজনীতি কোনও খেলা নয়। এটা ১৭ কোটি মানুষের জীবনের প্রশ্ন, বিশ্বে আমরা মাথা তুলে থাকবো নাকি মাথা নত করে কারও অধীনে থাকবো তা আমাদেরই নির্ধারণ করতে হবে। তাই ২০১৮ সালের জানুয়ারি থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত এই আলোচনা চালিয়ে যেতে হবে।’

শনিবার (৬ জানুয়ারি) রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাবের কনফারেন্স লাউঞ্জে ‘জাতীয় সংকট উত্তরণে গ্রহণযোগ্য নির্বাচন: নাগরিক ভাবনা’ শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

ড. আব্দুল মঈন খান বলেন, ‘গ্রামের মানুষ উচ্চ শিক্ষিত না হলেও তারা রাজনীতিতে শিক্ষিত। তারা প্রশ্ন করে, রাজনীতিতে আমরা কোথায় যাচ্ছি? কোনও কূল-কিনারা পাচ্ছি না কেন? সারা দেশের মানুষের মনে এমন প্রশ্ন উঠেছে। আমাদের দায়িত্ব হবে এসব প্রশ্নের উত্তর দেওয়া।’

তিনি আরও বলেন, ‘কিছু মানুষকে কিছু সময়ের জন্য বোকা বানিয়ে রাখা যায়। সব সময়ের জন্য কিন্তু মানুষকে বোকা বানিয়ে রাখা যায় না।’

এসময় উপস্থিত নেতা-কর্মীদের উদ্দেশে মঈন খান বলেন, ‘শুধু প্রেসক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে অনুষ্ঠান করে নয়, সকলকে পথে নামতে হবে।’

তিনি বলেন, ‘আওয়ামী লীগের অনেক নেতারা বলেন, আগামী নির্বাচনে বিএনপির উদ্দেশ্য স্পষ্ট নয়। আমি তাই আওয়ামী লীগ ও বিএনপির নেতা-কর্মীদের বলতে চাই, তারা (আওয়ামী লীগ) বিএনপির উদ্দেশ্য বুঝতে চায় না অথবা তারা ঘুমিয়ে আছে অথবা জেগে জেগে ঘুমাচ্ছে। আমি আগামী নির্বাচনের রূপরেখা ঘোষণা করছি। নির্বাচনের ফলাফলে স্বার্থ থাকবে না এমন একটি সহায়ক সরকারের অধীনেই আগামী নির্বাচন হতে হবে, এটাই বিএনপির আগামী নির্বাচনের রূপরেখা।’

ডেমোক্রেটিক মুভমেন্টের সভাপতি শাহাদাত হোসেন সেলিমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য আবু নাছের মো. রহমতউল্লাহ, বাংলাদেশ ন্যাপের মহাসচিব এম গোলাম মোস্তফা ভূঁইয়া প্রমুখ