শ্যামনগরে উন্নয়ন মেলার দ্বিতীয় দিনে শিক্ষার্থীদের উপচেপড়া ভীড়


প্রকাশিত : জানুয়ারি ১৩, ২০১৮ ||

রনজিৎ বর্মন, সুন্দরবনাঞ্চল (শ্যামনগর): স্কুল পুড়–য়া শিশুদের উচ্ছ্বাস, আনন্দে ভরপুর ছিল শুক্রবার শ্যামনগরে তিনদিনব্যাপী উন্নয়ন মেলার দ্বিতীয় দিন। উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে শ্যামনগর উপজেলা পরিষদ চত্তরে উন্নয়ন মেলার দ্বিতীয় দিনে সকালে ছিল উপজেলার বিভিন্ন প্রাথমিক, মাধ্যমিক, মাদ্রাসা ও কলেজ পর্যায়ে শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে চিত্রাঙ্কন, কুইজ ও বিতর্ক প্রতিযোগিতা। মেলা কর্তৃপক্ষ সূত্রে প্রকাশ, চিত্রাঙ্কনের বিষয় ছিল প্রাথমিকে‘ স্বপ্নের সেতু ’ও মাধ্যমিক পর্যায়ে ‘উন্নয়ন মেলার চিত্র’। বিতর্কের বিষয় ছিল ‘বাংলাদেশের বিনিয়োগের সম্ভাবনা অসীম’ এবং কুইজে বাংলাদেশের বিভিন্ন বিষয়ে প্রশ্ন করা হয়। বিতর্ক প্রতিযোগিতায় নুরনগর আশালতা মাধ্যমিক বিদ্যালয় বিজয়ী হয়েছে। বিতর্ক প্রতিযোগিতায় বিচারক, মডারেটর ও টাইম কিপার হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আবুল কালাম রফিকুজ্জামান, উপজেলা পল্লী উন্নয়ন কর্মকর্তা এসএম সোহেল, ওসিসি প্রণব কুমার বিশ^াস,সহকারী অধ্যাপক আব্দুল্লাহ আল ফারুক ও উপজেলা একাডেমিক সুপারভাইজার মীনা হাবিবুর রহমান। চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতার দায়িত্বে ছিলেন উপজেলা সহকারী শিক্ষা অফিসার ওয়াসিম উদ্দিন। সকল প্রতিযোগিতা চলাকালীন সময়ে উপস্থিত ছিলেন শ্যামনগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ কামরুজজামান, উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি সুজন সরকার। এছাড়া অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এসএম আতাউল হক দোলনসহ বিভিন্ন দপ্তরের সরকারী কর্মকর্তা, বিভিন্ন স্কুলের প্রধান শিক্ষক ও সহকারী শিক্ষকবৃন্দ। বিকালে বাংলা লোকনাট্য ইনস্টিটিউটের পরিবেশনায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান মঞ্চস্থ করা হয়। সাংস্কৃতিক অনুষ্টানে সংগিত, জারীগান, নৃত্য পরিবেশন করা হয়। এ সকল অনুষ্ঠানে শিল্পী হিসেবে অংশগ্রহণ করেন, সহকারী অধ্যাপক ড. প্রতাপ কুমার রায়, ইতিকা মন্ডল, ঐশ^র্য্য কর্মকার, সুদর্শনা চক্রবর্তী, স্বপ্না ঘোষ, মৈত্রী, সুদর্শন চক্রবর্তী, অলিপ্ত, মৌ, শ্রেয়া, মাম, অদ্রি, শর্বরী প্রমুখ। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন সহকারী অধ্যাপক বিনীত কুমার জোয়ারদ্দার।