জেলা জাপার সম্পাদককে হেয় প্রতিপন্ন করায় প্রতিবাদ


প্রকাশিত : মে ১০, ২০১৮ ||

 

জেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক আশরাফুজ্জামান আশুকে হেয় প্রতিপন্ন করতে সরদার আব্দুল মুজিদ এক প্রেস বিজ্ঞপ্তি দিয়েছেন। যা বিভিন্ন পত্রিকা অনলাইনে প্রকাশিত হয়েছে। বিষয়টি দৃষ্টিতে এসেছে সাতক্ষীরা জেলা জাতীয় পার্টির। আশরাফুজ্জামান আশু ১৯৮৩ সালে নতুন বাংলা যুব সংহতির মাধ্যমে জাপার রাজনীতিতে আসেন। সেই থেকে আজ অবধি তিনি সামনে থেকে পল্লীবন্ধু এরশাদের প্রতিনিধিত্ব করছেন যোগ্যতার প্রমান দিয়েছেন। এছাড়া তিনি একাধিকবার ভোমরা স্থলবন্দরের নির্বাচিত সভাপতি, সাতক্ষীরা চেম্বার অব কমার্সের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন এবং বর্তমানে সাতক্ষীরা জেলা ক্রীড়া সংস্থার বারবার নির্বাচিত সিনিয়র সহসভাপতি হিসেবে দায়িত্বরত আছেন। জাতীয় পার্টিকে সংগঠিত করতে তার প্রচেষ্টা তাকে জাতীয় পার্টির সকল পর্যায়ের কর্মী সমর্থকদের উজ্জীবিত করেছে।

জেলার সুসংগঠিত জাপাকে ধ্বংস করতে জাপা নামধারী কপিতয় সুবিধাবাদী নেতা, অন্য দলের দালালরা জাতীয় নির্বাচনকে সামনে রেখে এখন সক্রিয়। তারা সাতক্ষীরা সদর উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন, ওয়ার্ডের কর্মীদের বিভ্রান্ত করছে। সদরের ১৪টি ইউনিয়নে সুসংগঠিত কমিটি থাকা সত্তেও ঘরে বসে জামায়াতশিবির বিএনপির নাশকতাকারীদের একত্রিত করছে। যা দলের ভাবমূর্তি দারুণভাবে ক্ষুন্ন করছে। সরদার আব্দুল মুজিদ নামের এই নামধারীকে বিগত বছর জাপার কোন কর্মকান্ডে দেখা যায়নি। দলের দুর্দিনে দেখা মেলেনি।

পার্টির পরিচয় দিয়ে দলের ভিতর নেতাকর্মীদের বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করলে শক্ত হাতে তাকে দমন করা হবে। নেতাকর্মীদের বিভান্ত না হওয়া এহেন হীন ঘটনার প্রতিবাদে বিবৃতি দিয়েছেন জেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি শেখ আজহার হোসেন, কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান, সাবেক এমপি এড. . সালাউদ্দীন, কেন্দ্রীয় কমিটির শিল্প বাণিজ্য বিষয়ক সম্পাদক আব্দুস সাত্তার মোড়ল, জেলা জাপার সহসভাপতি নুরুল ইসলাম, এসএম নজরুল ইসলাম, আবুল ফজল, মো. মাহবুবুর রহমান, ইসরাইল গাজী, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক দুররুল হুদা লালু, সহসাধারণ সম্পাদক সৈয়দ ইমামুল মোসলেমিন দাদু, আশিকুর রহমান বাপ্পী, সাংগঠণিক সম্পাদক মো. মুনছুর আলী, একেএম মোশারফ হোসেন, যুগ্ম সাংগঠণিক সম্পাদক মোশারফ হোসেন মোকছেদ, মো. ইব্রাহিম সরদার, মফিজুল ইসলাম, অর্থ সম্পাদক শ্রী স্বপন কুমার সরকার, প্রচার সম্পাদক শ্রী কমল বিশ্বাসসহ জাপা, অঙ্গ সহযোগী সংগঠণের নেতৃবৃন্দ। প্রেস বিজ্ঞপ্তি