স্বপ্না বাচঁতে চায়


প্রকাশিত : মে ১০, ২০১৮ ||

 

নিজস্ব প্রতিনিধি: সদর উপজেলার তুজলপুর গ্রামের রবিউল ইসলামের কন্যা মিনু সুলতানা স্বপ্না (২০) জন্মের পর পিতার ঘরে তার বেশি দিন ঠাঁই হয়নি। কারণ তার বয়স যখন তখন মা তানজিলা খাতুন কে তালাক দিয়ে বাড়ি থেকে বের করে দেয়া হয়। তখন থেকে মায়ের হাত ধরে নানার বাড়ি লাবসা নলকুড়া গ্রামে অস্থায়ী বসবাস তার। ৮ম শ্রেণিতে পড়াশোনা করছে এমন সময় তার গলার ভিতরে একটি সমস্য দেখা দিলে চিকিৎসার জন্য ২০১৫ সালে ডা. এনকে সিনহার কাছে যান। তিনি তাকে ঢাকার আদ্ দ্বীন হাসপাতালে চিকিৎসা নেওয়ার পরামর্শ দেন। সেখানে পরীক্ষা করার পর ক্যান্সার ধরা পড়ে। ডা. তাকে ৬টি কেমো নেওয়ার পরামর্শ দেয়। ৫নং কেমো নেওয়ার সময় স্বপ্না মারাত্মকভাবে অসুস্থ হয়ে পড়ে। তার পর কেমো বন্ধ করে উন্নত চিকিৎসার জন্য কলকাতা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে যান। সেখানে ডাক্তাররা তার বিভিন্ন পরীক্ষানীরিক্ষা করে তার শরীরে কোন ক্যান্সার কোন নমুনা পাওয়া যায়নি। তার বনটিবি হয়েছে বলে জানান। ডাক্তার বলেন, ভুল চিকিৎসার কারণে তার শরীরে হীপজয়েন্ট পায়ের হাড় ভেঙ্গে গেছে। কলকাতা মেডিকেলে দুই মাস চিকিৎসা নেওয়ার পর টাকার অভাব পড়লে চিকিৎসা শেষ না করে দেশে ফিরে আসে। কলকাতার ডাক্তাররা জানান, এই রোগ নিরাময় যোগ্য। তবে তার চিকিৎসার জন্য প্রায় একলক্ষ পঞ্চাশ হাজার টাকা ব্যয় হবে। স্বপ্না নতুন করে বাঁচতে চায়। তার চিকিৎসার জন্য সমাজের হৃদয়বানব্যক্তি প্রতিষ্ঠানের কাছে চিকিৎসার জন্য আর্থিক সাহায্যের আকুল আবেদন জানিয়েছেন। সাহায্য পাঠনোর ঠিকানা মোছা. তানজিলা খাতুন, সঞ্চয়ী হিসাব নং২২০৬৮, ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লি. সাতক্ষীরা শাখা অথবা বিকাশ নং০১৭৭৪২৬৯৭৭৯(নিজস্ব)