আশাশুনির কুল্যার আরারে প্রকাশ্য রমরমা জুয়ার আসর


প্রকাশিত : জুলাই ৫, ২০১৮ ||

আব্দুস সামাদ: আশাশুনি উপজেলার কুল্যা ইউনিয়নের আরার দাশপাড়া খালের পাড়ে চলছে প্রকাশ্য রমরমা জুয়ার আসর। স্থানীয় প্রশাসনকে ম্যানেজ করে চলছে জুয়ার আসর। উপজেলার কুল্যা ইউনিয়নের দাশপাড়ায় আফাজ মালী, সামাদ মালী, বশির আহমদ টুকু ও তেতুলিয়ার মুজিবরসহ বেশ কয়েকজন জুয়াড়ি মিলে এই জুয়ার আসর পরিচালনা করে আসছে। প্রতিদিন উপজেলার বিভিন্ন প্রান্ত থেকে উঠতি বয়সি যুবক ও জুয়াড়িরা এখানে এসে হাজার হাজার টাকা উড়িয়ে নি:স্ব হচ্ছে। প্রতিবার তিন খানা করে তাস ১৫ থেকে ১৭ জনের মধ্যে বটন করে ১০ হাজার টাকা থেকে শুরু করে ৫০ হাজার টাকা পর্যন্ত বাজি ধরা হয়। এমনকি উক্ত তিন খানা তাস না দেখেই অন্ধ বিশ্বাসে ভাগ্নের উপর ছেড়ে দিয়ে হাজার হাজার টাকা বাজি ধরা হয়েছে। ফলে এ সকল পরিবারগুলো নি:স্ব হয়ে যাচ্ছে। পাশাপাশি জড়িয়ে পড়ছে মাদকের করাল ছোবলে। এলাকায় ঘটছে চুরি ছিনতাইয়ের মত ঘটনা। এছাড়া যুব সমাজের নৈতিক অবক্ষয় তো হচ্ছেই। প্রতিদিন ২ হাজার টাকায় ম্যানেজ করে কাদাকাটির এক সাংবাদিকের ছত্র-ছায়ায় পরিচালিত হচ্ছে বলে এলাকার একাধিক ব্যক্তি জানান। জুয়াড়ীদের অভয় দিয়ে কথিত ওই সাংবাদিক গড়ে তুলেছেন জুয়ার আস্তনা। এলাকার কেউ প্রতিবাদ করতে চাইলে তার মান সম্মান নিয়ে টানা হেচড়া করার হুমকি দেন ওই সাংবাদিক। এতে করে এলাকবাসি এক প্রকার নিরবে সহ্য করছেন জুয়াড়ীদের অত্যাচার। এসকল সুবিধাভোগীরা লুটে নিচ্ছে প্রতিদিন ১৫ হাজার থেকে ২০ হাজার টাকা। সাধারণ মানুষকে প্রলুব্ধ করে পাতানো জুয়ার ফাঁদে পকেট কেটে হাতিয়ে নেওয়া হচ্ছে লাখ লাখ টাকা। এলাকাবাসি জানায়, সবদিক ম্যানেজ করেই চলছে এসব অবৈধ কারবার। এখানে এসে সবকিছু হারিয়ে নি:স্ব হচ্ছে সাধারণ মানুষ। আর লাভবান হচ্ছে জুয়া পরিচালনাকারি ও আয়োজকরা। এ ধরনের কর্মকান্ডের কারণে দরিদ্র মানুষের সামান্য রোজগারের অর্থও চলে যাচ্ছে জুয়া ও মাদকে। বেড়ে যাচ্ছে পারিবারিক অশান্তি। অসহায় সাধারণ মানুষ বাধ্য হয়েই জড়িয়ে পড়ছে চুরি, ছিনতাইসহ নানাবিধ অপকর্মের সঙ্গে। জুয়ার আসরের কারণে মানুষের কষ্টে অর্জিত অর্থ যেমন নষ্ট হচ্ছে, তেমনি উঠতি বয়সী যবুকরা ধাবিত হচ্ছে মাদক ও অশ্নীলতার দিকে। এ ব্যাপারে আশাশুনি থানার (ওসি) মোস্তাফিজুর রহমান জানান, বিষয়টি আমার জানা নেই। তবে যত দ্রুত সম্ভব আমি ব্যবস্থা গ্রহণ করছি। এমনকি আশাশুনি উপজেলার কোথায় কোন মাদক ও জুয়ার আসর বসবে না। জানতে পারলে তাংক্ষণিক ব্যবস্থা গ্রহণ করব।