আগরদাড়িতে পুলিশের উপর ককটেল নিক্ষেপ, জিহাদি বইসহ আটক ৫: মামলা


প্রকাশিত : জুলাই ১২, ২০১৮ ||

নিজস্ব প্রতিনিধি: নাশকতার পরিকল্পনা ও প্রস্তুতি নেয়ার সময় সদর উপজেলার আগরদাড়ি এলাকা থেকে ৫জন আটক হয়েছে বলে দাবি করেছে পুলিশ। পুলিশের দাবি বুধবার ভোর ৫টা ৪০ মিনিটের দিকে কতিপয় বিএনপি-জামাতের উচ্ছৃংখল নেতা কর্মী আগরদাড়ি মাদ্রাসার মাঠের দক্ষিণ পাশে ফাঁকা জায়গায় বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে বিভিন্ন প্রকার কমূসূচী বাস্তবায়ন করার জন্য এবং আসন্ন ২০১৯ সালের নির্বাচনকে বানচাল করার লক্ষ্যে একত্রিত হয়ে নাশকতামূলক কার্যকলাপ সৃষ্টির লক্ষ্যে গোপন বৈঠক ও ষড়যন্ত্রের প্রস্তুতি নিচ্ছিল। খবর পেয়ে পুলিশ অভিযানে গেলে পুলিশকে উদ্দেশ্যে করে পরপর ৩টি ককটেল বোমার বিস্ফারণ ঘটায় বিএনপি-জামাতের উচ্ছৃংখল নেতাকর্মীরা। পুলিশ ঘটনাস্থল হতে বিস্ফোরিত বোমার আলামত ও ৪টি জিহাদী বই উদ্ধার করে। পুলিশ এসময় গদাঘাটার মহিউদ্দিন বিশ্বাসের ছেলে কামরুজ্জামান (২৪), কাটিয়া গদাইবিল এলাকার জোহর আলীর ছেলে শফিকুল ইসলাম (৪৫), শিয়ালডাঙ্গার মৃত আকরাম গাইনের ছেলে আলফাজ গাইন (৪১), পুরাতন সাতক্ষীরার কুলিনপাড়ার মৃত ছমিরউদ্দিনের ছেলে নূর উদ্দিন (৫৫) ও রইচপুরের নূরুল আমিন সরদারের ছেলে আলমগীর হোসেন ওরফে আলমকে আটক করে।
সাতক্ষীরা সদর থানার অফিসার ইনচার্জ মারুফ আহম্মদ দৈনিক পত্রদূতকে জানান, তার নেতৃত্বে গোপন
সংবাদের প্রেক্ষিতে ঘটনাস্থলে পুলিশ অভিযানে গেলে পুলিশের উপস্থিতিতে টের পেয়ে বিএনপির উচ্ছৃংখল নেতা কর্মীরা আকষ্মিক পুলিশকে উদ্দেশ্যে করে পরপর ৩টি ককটেল বোমার বিস্ফোরণ ঘটায়। এসময় তারা দিগি¦দিক দৌড়ে পালানোর চেষ্টাকালে সংগীয় অফিসার ফোর্সের সহায়তায় উপরোক্ত ব্যক্তিদের ঘটনাস্থল থেকে গ্রেপ্তার করেন। পরবর্তীতে ঘটনাস্থল হতে বিস্ফোরিত বোমার আলামত ও ৪টি জিহাদী বই উদ্ধার করা হয় এ ঘটনায় ১৯৭৪ সালের স্পেশাল পাওয়ার এ্যাক্ট এর ১৫(৩)/২৫-ঘ তৎসহ ১৯০৮ সালের বিস্ফোরক উপাদানাবলী আইনের ৩/৬ ধারা মামলা হয়েছে। যার নং- ৩১, তারিখ- ১১-০৭-২০১৮।