কৈখালীতে ভিজিএফ’র কার্ড বিতরণে অনিয়মের অভিযোগ: চেয়ারম্যানের একান্ত সচিব লাঞ্ছিত


প্রকাশিত : আগস্ট ১৮, ২০১৮ ||

রমজাননগর (শ্যামনগর) প্রতিনিধি: শ্যামনগর উপজেলার কৈখালী ইউনিয়নের পবিত্র ঈদুল আযহা উপলক্ষে ভিজিএফ কার্ড বিতরণে অনিয়মের অভিযোগে চেয়ারম্যান শেখ আব্দুর রহিমের একান্ত সচিব মো. নূরুল আমিন জনতার হাতে লাঞ্ছিত হয়েছেন বলে খবর পাওয়া গেছে। প্রাপ্ত তথ্য ও সরজমিনে দেখা গেছে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পবিত্র ঈদুল আযহা উপলক্ষে হত দরিদ্রদের মাঝে ঈদ উপহার হিসেবে ইউনিয়ন প্রতি ৫/৭ হাজার হারে ভিজিএফ কার্ড বিতরণ করেছেন। তারই ধারাবাহিকতায় কৈখালী ইউনিয়নে ভিজিএফ কার্ড বিতরণ চলছে। ভিজিএফ কার্ড বিতরণে স্থানীয় ইউপি সদস্যদের না জানিয়ে চেয়ারম্যান শেখ আব্দুর রহিম তার ব্যক্তিগত সহকারী মো. নূরুল আমিন, জয়াখালী মহাজেরীন সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দপ্তরীকাম প্রহরী মো. সফিকুল ইসলাম, চেয়ারম্যানে বাড়ির কর্মচারী মো. মুনছুর আলীকে দিয়ে ভিজিএফ কার্ডের তালিকা করেছেন। শুক্রবার বিকালে চেয়ারম্যানের নিজস্ব বাসভবন জয়াখালীতে বসে ইউপি সদস্যদের প্রদত্ত তালিকা উপক্ষো করে কার্ড বিতরণ শুরু করেন। তখন স্থানীয় জনগণ এ ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়ে প্রকৃত তালিকাধারীদের ভিতরে কার্ড বিতরণের দাবি জানায়। কিন্তু সে দাবি উপেক্ষা করে কার্ড বিতরণ শুরু করলে উত্তেজিত জনতা চেয়ারম্যানের একান্ত সচিব মো. নুরুল আমিন, কর্মচারী মুনছুর আলী, দপ্তরী কাম নৈশ প্রহরী সফিকুল ইসলামকে ধাওয়া করে। বেগতিক বুঝে তারা ঘটনার স্থল থেকে দৌড়ে পালিয়ে যায়। তবে উত্তেজিত জনতা নুরুল আমিনকে লাঞ্ছিত করেন এবং চেয়ারম্যান শেখ আব্দুর রহিমের বাড়িতে হামলা চালানোর চেষ্টা করলে শ্যামনগর থানার এসআই হাবিব সঙ্গিয় ফোর্স নিয়ে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। ভিজিএফ কার্ডধারীরা বলেন, আমাদের নায্য অধিকার থেকে চেয়ারম্যান বঞ্চিত করছে। আবার যাদেরকে কার্ড দিয়েছে তাদের মাঝে ২০ কেজির পরিবর্তে ১৪/১৫ কেজি হারে চাল দেয়া হয়েছে। এ বিষয়ে চেয়ারম্যান আব্দুর রহিসের সাথে যোগাযোগ করার জন্য তার মোবাইলে কল দেয়া হলে তিনি রিসিভ করেন নি। এ ঘটনার প্রতিক্রিয়া জানতে কৈখালী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি জিএম রেজাউল করিমের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ইদুল ফিতর ও ঈদুল আজহার ভিজিএফ কার্ড বিতরণে কৈখালীতে ব্যাপক অনিয়ম হয়েছে। যার ফলে প্রধানমন্ত্রীর অবদান ভিজিএফ কার্ড থেকে কৈখালীর প্রকৃত হকদাররা বঞ্চিত হয়েছে। এঘটনার তীব্র নিন্দা জানান। এ বিষয়ে শ্যামনগরের ইউএনও’র কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি এ ঘটনা জানিনা। তবে অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।