আওয়ামী লীগের প্রার্থীর তালিকায় জগলুল হায়দারের নাম পত্রিকায় প্রকাশে খুশির জোয়ার!


প্রকাশিত : সেপ্টেম্বর ১৩, ২০১৮ ||

পত্রদূত ডেস্ক: একাদশ জাতীয় নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মনোনয়ন তালিকায় এসএম জগলুল হায়দারের নাম দেশের একটি পত্রিকায় প্রকাশ হবার পর এলাকাবাসির মধ্যে খুশির জোয়ার বইছে। দলীয় নেতাকর্মী থেকে শুরু করে মুক্তিযোদ্ধা এবং পেশাজীবীদের মধ্যে মিষ্টি বিতরণের খবর পাওয়া গেছে। একই সাথে দলীয় সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে প্রাণ খুলে দোয়া করেছেন তারা। অনেকেই টানা দ্বিতীয় বারের মত এলাকাবাসির প্রিয়মুখ জগলুল হায়দারের মনোনয়নের খবরে দলীয় সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন। যদিও এ খবরের সত্যতা ও গ্রহণযোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন অনেকেই। দলীয় অনেকেই খবরটির মন্তব্য করতে গিয়ে বলেছেন, ‘এটি সরকারের জনমত যাচাইয়ের একটি কৌশল।’ মনোয়ন বোর্ডের কোন সূত্র এ খবরের সত্যতা নিশ্চিত করেনি বলে জানান অনেকেই।

তবে সাতক্ষীরা-৪ আসনে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী হিসেবে এসএম জগলুল হায়দারের বিকল্প প্রার্থী নেই বললেই চলে। কর্মীবান্ধব হিসেবে সাংগাঠনিক দিক দিয়ে তিনি ইতোমধ্যে সবার নজর কেড়েছেন।

শ্যামনগর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জগলুল হায়দার বর্তমানে শ্যামনগর ও কালিগঞ্জ আংশিক নিয়ে গঠিত সাতক্ষীরা-৪ আসনের এমপি। আসন্ন একাদশ সংসদ নির্বাচনেও তিনি মনোনয়ন প্রত্যাশী।
সূত্র মতে গত ১২ সেপ্টেম্বর দৈনিক কালের কন্ঠ পত্রিকায় বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতাদের বরাত দিয়ে মনোনয়ন নিশ্চিত হওয়া প্রার্থীদের ৬৭ জনের একটি তালিকা প্রকাশ করে। যেখানে সারা বাংলাদেশের বিভিন্ন অংশের সম্ভাব্য প্রার্থীদের একটি তালিকা প্রকাশ পায়। মাত্র ৬৭ জনের ঐ তালিকায় ফরিদপুরে খন্দকার মোশারফ হোসেন, ঢাকায় সাবের হোসেন, বাগেরহাটে শেখ হেলাল উদ্দীন, ঢাকায় বিএমএ নেতা ডা. মোস্তফা জামাল মহিউদ্দীন, ভোলায় তোফায়েল আহমদ, ঢাকায় রহমত উল্লাহ, শেখ ফজলে নুর তাপস ও কুষ্টিয়াতে মাহাবুব-উল আলমসহ অনেকের নাম দেখা যায়।
আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতাদের বরাত দিয়ে পত্রিকাটি জানায় বিএনপি নির্বাচনে এলে কিংবা না এলেও ঐ তালিকা পরিবর্তনের সম্ভাবনা নেই।

শ্যামনগর সদর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক দুর্গা চক্রবর্তী বলেন, জগলুল হায়দারের মনোয়ন নিশ্চিত হওয়ার খবরে দলীয় নেতাকর্মীদের মধ্যে আনন্দের জোয়ার বইছে।
উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের নেতা দেবীরঞ্জন বলেন, গত পাঁচ বছরে মাটি ও মানুষের সাথে যে নিবিড় সম্পর্ক গড়ে তুলেছেন জগলুল হায়দার সামনের নির্বাচনে তার সুফল মিলবে। এ এলাকার মানুষ জগলুল হায়দারকে ভালবেসে তাকে পুনরায় নৌকার বিজয় নিশ্চিত করবে।

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির নেতা কৃষ্ণেন্দু মুখার্জী বলেন, এলাকার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে জগলুল হায়দারের গত পাঁচ বছরের অবদানের প্রতিদান দিতে অভিভাবক থেকে শুরু করে এলাকাবাসি মুখিয়ে আছেন। এভাবে বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ তাদের অভিব্যক্তি প্রকাশ করেছেন।

এদিকে জগলুল হায়দারের মনোনয়ন নিশ্চিতের খবরে শ্যামনগর ও কালিগঞ্জ আংশিক আসনের সর্বস্তরের দলীয় নেতাকর্মীদের উচ্ছ্বসিত হতে দেখা যায়।
এবিষয়ে সংসদ সদস্য জগলুল হায়দার বলেন, দল এবং নেত্রী আগেই জানিয়েছিলেন মুখ দেখে নয়, কর্মকান্ড দেখে প্রার্থী র্নিধারণ করবেন। যে কারণে এলাকাবাসির সাথে নিবিড় সম্পর্ক বজায় রেখে এলাকার উন্নয়নে ভুমিকা রাখার মুল্যায়ন করার কারণে হয়তো বা মনোনয়ন নিশ্চিত হওয়া সংক্ষিপ্ত তালিকায় তার নাম জায়গা পেয়েছেন। এজন্য তিনি দলীয় সভানেত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে বলেন, চুড়ান্ত প্রার্থী তালিকায় জায়গা পেলে তিনি পরবর্তী নির্বাচনে বিজয়ী বেশে পুনরায় শ্যামনগর ও কালিগঞ্জ আংশিক অংশ নিয়ে গঠিত তার সংসদীয় আসনের উন্নয়ন অব্যাহত রাখতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।
এদিকে এসএম জগলুল হায়দার এমপি মনোনয়নের খবরে শ্যামনগর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের পক্ষ থেকে আনন্দ মিছিল ও দোয়া অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। বুধবার বিকাল ৫টায় উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার দেবীরঞ্জন মন্ডলের নেতৃত্বে আনন্দ মিছিল শেষে মুক্তিযোদ্ধা ভবন চত্তরে এক দোয়া অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। এসময়ে ডেপুটি মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আবুল হোসেনসহ সকল মুক্তিযোদ্ধারা আনন্দ মিছিল ও দোয়া অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেন। দোয়া অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে দোয়া করা হয়। দোয়া অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন সাব-রেজিষ্ট্রী মসজিদের ইমাম মাও. হাফিজুর রহমান। অপরদিকে এমপি জগলুল হায়দারের মনোনয় নিশ্চিত হওয়ায় উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি একরামুল কবির লায়েজ ও সাধারণ সম্পাদক আব্দুল হাকিম সবুজ সহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশাজীবি সংগঠনের পক্ষ থেকে মিষ্টি বিতরণ করা হয়।