কলারোয়া উপজেলা চেয়ারম্যান পদে লাল্টুকে চাচ্ছেন সুবিধাবঞ্চিত তৃণমূল


প্রকাশিত : সেপ্টেম্বর ১৩, ২০১৮ ||

নিজস্ব প্রতিনিধি: আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পরপরই অনুষ্ঠিত হবে উপজেলা পরিষদ নির্বাচন। স্বাভাবিকভাবেই সম্ভাব্য এমপি প্রার্থীদের পাশাপাশি নড়েচড়ে বসতে শুরু করেছেন উপজেলা চেয়ারম্যান পদের সম্ভাব্য প্রার্থীরাও।
২০১৯ সালের প্রথম দু’এক মাসের মধ্যেই কলারোয়া উপজেলা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা। সেই নির্বাচনকে সামনে রেখে কলারোয়া উপজেলাব্যাপী তৃনমূলে দাবি উঠেছে উপজেলা চেয়ারম্যান পদে আমিনুল ইসলাম লাল্টু যেন নৌকা প্রতীক পেয়ে জনগণের পাশে থাকতে পারেন।
তৃণমূলকে সাথে নিয়ে ছাত্র রাজনীতি থেকে উঠে আসা লাল্টু আজ কলারোয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক পদে আসীন। ছাত্রলীগের লড়াকু সাবেক এই নেতা যুবলীগের নেতৃত্ব দিয়েছেন বলিষ্ট হাতে। উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন পরপর দু’বার।
গত পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে নৌকা প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করেও দলীয় গ্রুপিং-এর শিকার হয়ে পরাজিত হন আমিনুল ইসলাম লাল্টু। সেখান থেকেই উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান ফিরোজ আহম্মেদ স্বপনের সাথে দলীয় বিরোধে কলারোয়ায় আওয়ামী লীগের প্রকাশ্য দু’টি গ্রুপ বিদ্যমান। তবে সুবিধাবঞ্চিত ও নিষ্পেষিত কর্মী-সমর্থকদের ব্যাপক সমর্থন নিয়ে রাজনীতির মাঠে বেশ চাঙ্গা লাল্টু নেতৃত্বাধীন গ্রুপটি। নিয়মিত মিটিং-মিছিলসহ গণসংযোগ করে যাচ্ছেন তিনি।
উপজেলার ১২টি ইউনিয়নে ঘুরে দেখা যায়, লাল্টুর জয় জয়কার অবস্থা। বর্তমানে রাষ্ট্রীয় বা প্রশাসনিক কোন পদে না থাকলেও সাধারণ জনগণের শেষ আশ্রয়বিন্দু হয়ে উঠেছেন তিনি। তৃণমূল আওয়ামী লীগের সুদৃষ্টি তাঁর দিকেই। বেশিরভাগ জনপ্রতিনিধি আর নেতৃত্বও তার পক্ষে। ১২টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভার ২৬জন সভাপতি/ সাধারণ সম্পাদকের মধ্যে ১৮ সভাপতি/সাধারণ সম্পাদক, ১১৭টি ওয়ার্ডের ২৩৪ জন ওয়ার্ডের সভাপতি/সাধারণ সম্পাদকের মধ্যে ২শ’ জনের দাবি জননেত্রী শেখ হাসিনা আগামি কলারোয়া উপজেলা নির্বাচনে লাল্টুকে নৌকার মনোনয়ন দিলে নৌকার বিজয় সুনিশ্চিত। তাদের আস্থার প্রতীক এখন আমিনুল ইসলাম লাল্টু।
এছাড়া বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যানের কারণে প্রকাশ্য না আসলেও পৌরসভার কাউন্সিলর এবং ইউপি চেয়ারম্যান ও ইউপি সদস্যদের অনেকেই লাল্টুর পক্ষে রয়েছেন বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে। তারা অনেকেই গোপনে লাল্টুর সাথে যোগাযোগ রক্ষা করে চলেন।
তৃণমূলের নেতাকর্মীরা বলছেন, ‘কর্মীবান্ধব লাল্টু বর্তমান সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ড জনগণের সামনে তুলে ধরে নিয়মিত গণসংযোগ করে চলেছেন। অন্য প্রার্থীরা কেউ জনগণের পাশে থাকে না, শুধু নির্বাচনের সময় মাঠে নামেন। বাকী সময় নিজের আখের গোছানোর ধান্দায় থাকেন। সেখানে লাল্টু কলারোয়ায় নিজ বাড়িতে থেকে সব সময় জনগণের সেবা করে যাচ্ছেন। তাই কলারোয়া উপজেলা নির্বাচনে লাল্টুর বিকল্প কোন প্রার্থী নেই।’