ফিংড়ী ধুলিহর ও ব্রহ্মরাজপুর বিভিন্ন পূজামন্ডপ পরিদর্শন করলেন জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম


প্রকাশিত : অক্টোবর ১৮, ২০১৮ ||

 

ফিংড়ী প্রতিনিধি: সদর উপজেলার ফিংড়ী, ধুলিহর ও ব্রহ্মরাজপুর ইউনিয়নের বিভিন্ন পূজামন্ডপ পরিদর্শন করেছেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো. নজরুল ইসলাম। বুধবার বিকাল ৪টা হতে পূজামন্ডপ পরিদর্শন করেন তিনি। এসময় তার সঙ্গে ছিলেন, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এসএম শওকত হোসেন, জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সম্পাদক লায়লা পারভীন সেঁজুতি, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহজাহান আলী, যুগ্ম-সম্পাদক শেখ আব্দুর রশিদ, সাংগঠনিক সম্পাদক শ্যামুয়েল ফেরদৌস পলাশ, কৃষি ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক শেখ মনিরুল হোসেন মাসুম, পৌর আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সম্পাদক রাশিদুজ্জামান রাশি, ফিংড়ী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি লুৎফর রহমান, ব্রহ্মরাজপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি নিলিপ কুমার মল্লিক, ফিংড়ী ইউপি চেয়ারম্যান সামছুর রহমান, ধুলিহর ইউপি চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান বাবু, ব্যাংদহা বাজার কমিটির সাধারণ সম্পাদক শেখ মোনায়েম হোসেন, জেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম-সাধারন সম্পাদক আসিব শাহবাজ, জেলা যুবলীগের সদস্য সিদ্দিকুর রহমান, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক অহিদুজ্জামান টিটু, সদর উপজেলা তরুণলীগের দপ্তর সম্পাদক মো. আশরাফুজ্জামান, জেলা পরিষদ সদস্য মনিরুল ইসলাম, ফিংড়ী ইউনিয়ন যুবলীগের আহবায়ক মেজবাউদ্দীন টপি, যুগ্ম-আহবায়ক শেখ আজমীর হোসেন বাবু, শেখ ফারুক হোসেন, ধুলিহর ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি আজহারুল ইসলাম, ব্রহ্মরাজপুর ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মাহমুদ হাসান লিটন প্রমুখ। পরিদর্শনকালে নজরুল ইসলাম বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এই বাঙালি জাতিকে উপহার দিয়েছেন স্বাধীন দেশ এবং তারই কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশকে বিশ্বের দরবারে আত্মনির্ভরশীল জাতি হিসেবে পরিচিত করেছেন। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সরকার শিক্ষা বান্ধব সরকার। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শিক্ষার প্রসার ঘটাতে মানসম্মত শিক্ষা ব্যবস্থা চালু করেছেন। সেই লক্ষ্যে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নতুন ভবনসহ বিভিন্ন শিক্ষা উপকরণ দিয়ে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে এগিয়ে নিচ্ছেন। দেশের শিক্ষাসহ সকল উন্নয়নে অব্যাহত রাখতে আওয়ামী লীগ সরকার কাজ করছে। আওয়ামী লীগ সরকার উন্নয়নের সরকার। আজ স্বপ্নের পদ্মাসেতু দৃশ্যমান। বাংলাদেশের মানুষ এখন আর না খেয়ে থাকেনা। জননেত্রী শেখ হাসিনা ক্ষমতায় থাকলে দেশের মানুষ শান্তিতে থাকে। ধর্ম যার যার, উৎসব সবার। যে যার ধর্ম পালন করতে হবে। বর্তমান সরকার ধর্ম ভিত্তিক সরকার। একসময় ওই বিএনপি জামাত অপপ্রচার চালাত মসজিদে নাকি পূজা করা হবে। আপনারা বলেন কোন মানুষ কী মসজিদে পূজা করে? শেখ হাসিনা সরকার উন্নয়নের সরকার। দেশের অধিকাংশ মসজিদ ও মন্দিরে ছেলে-মেয়েদের জন্য গণশিক্ষা কেন্দ্র চালু করেছে। বিভিন্ন মন্দির করে দিচ্ছে। দেশের প্রতিটি জেলায় একটি করে অত্যাধুনিক মসজিদ নির্মাণ করার পরিকল্পনা করছে সরকার। আমাদের সাতক্ষীরার মতো জায়গায় মেডিকেল কলেজ, বাইপাস সড়ক, বিভিন্ন স্থানে সাইক্লোন সেন্টার, কলেজ, মাদরাসা, স্কুল নির্মাণ, রাস্তাঘাট নির্মাণ, সদর হাসপাতাল উন্নতিকরণ, চীফ জুডিশিয়াল কোর্ট ভবন নির্মান করা হয়েছে। শেখ হাসিনা সরকার এমন কোন সেক্টর নেই যেখানে উন্নয়ন করেনি। এ সরকার জনগণের সরকার, উন্নয়নের সরকার। এ সরকারের উন্নয়নের এ ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখতে আগামী মহান জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নৌকা প্রতিকে ভোট দিয়ে শেখ হাসিনা সরকারকে আবারও রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় আনতে হবে। দলীয় সভানেত্রীর নির্দেশ অমান্য করে অনেকে বিরোধী দলের ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়েছেন। তাদের কুৎসা রটনা থেকে বিরত থেকে শেখ হাসিনার উন্নয়ন প্রচারের আহ্বান জানান তিনি।