তালার কৃষ্ণকাটি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ


প্রকাশিত : অক্টোবর ২৩, ২০১৮ ||

 

তালা (সদর) প্রতিনিধি: তালার কৃষ্ণকাটি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক তপন কুমার দে’র বিরুদ্ধে নানা দুর্নীতি-অনিয়মের সংবাদ পত্রিকায় প্রকাশিত হওয়ার পর স্থানীয় অনেকেই সাংবাদিকদের কাছে তার অপকর্মের আরও নানা তথ্য নিয়ে হাজির হচ্ছেন। এডিপি’র অর্থ আত্মসাত, মিনিষ্ট্রি অডিটে ভুয়া ভাউচার তৈরি, ভুয়া দাতা সদস্য সৃষ্টি, পকেট ম্যানেজিং কমিটি গঠন ও পরিবর্তন, বিদ্যালয়ে নিজস্ব সম্পত্তি হারি দিয়ে টাকা আত্মসাতের একাধীক অভিযোগ পাওয়া গেছে প্রধান শিক্ষক তপন দে’র বিরুদ্ধে। আদালতে মামলা এবং সরকারি বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ দায়েরের পরও অর্থের বিনিময়ে প্রধান শিক্ষক তপন কুমার দে গোপনে নিয়োগ পরীক্ষার পায়তারা চালিয়ে যাচ্ছেন।
সরেজমিন এলাকায় গেলে, কৃষ্ণকাটি গ্রামের সাবেক অভিভাবক সদস্য ও ওয়ার্ড আ’লীগের সভাপতি সাইকুল ইসলাম, নাজমুল হুদা খোকন, লিয়াকত সরদার, নিয়াকান মোল্যা জানান, বর্তমান বছরে এডিপি হতে ১ লাখ টাকা বরাদ্দ পেয়েছে স্কুল। সেই টাকা কোন কাজে না লাগিয়ে সম্পূর্ণ টাকা আত্মসাত করার চেষ্টা করে প্রধান শিক্ষক। কিন্তু পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশিত হওয়ায় তড়িঘড়ি করে ২ হাজার টাকার বাঁশ, কয়েকটি সিমেন্টের পিলার ও একবান টিন কিনে স্কুলের সামনে একটি শেড তৈরি করেছে। যার অনুমানিক ব্যয় ১২ থেকে ১৪ হাজার টাকা হবে। এছাড়া এক-দেড় হাজার টাকা দিয়ে স্কুল ভবন সংস্কার করেছে। বাকী টাকা কি করেছে তা বলছেনা। তারা আরও জানায়, ২০১৪ সালে মিনিষ্ট্রি থেকে অডিট করতে আসলে স্কুলের ক্ষতি হবে বলে আলমারী ও অন্যান্য জিনিসপত্র ক্রয় দেখিয়ে ভুয়া ভাউচার তৈরি করে কমিটির সদস্যদের নিকট থেকে স্বাক্ষর করে নেন প্রধান শিক্ষক তপন কুমার দে। এব্যাপারে কৃষ্ণকাটী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক তপন কুমার দে’র নিকট জানতে চাইলে তিনি সাংবাদিক পরিচয় পেয়েই ব্যস্ততার অজুহাতে নিজের মুঠোফোনটির লাইন কেটে দেন।



error: Content is protected !!