কলারোয়ায় úঞ্চম শ্রেণীর ছাত্রীর শ্লীলতাহানির অভিযোগ সভাপতিসহ তিনজনকে মারপিট, প্রধান শিক্ষক গ্রেপ্তার!


প্রকাশিত : নভেম্বর ৬, ২০১৮ ||

মনিরুল ইসলাম মনি: পঞ্চম শ্রেণির এক স্কুল ছাত্রীকে শ্ল¬ীলতাহানির অভিযোগে ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকসহ তিনজনকে পিটিয়ে জখম করা হয়েছে। সোমবার সকাল সাড়ে নয়টার দিকে কলারোয়া উপজেলার ধানঘরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষককে গ্রেপ্তার করেছে। গ্রেপ্তারকৃত শিক্ষকের নাম জাকির হোসেন (৫০)। তিনি কলারোয়া উপজেলার ধানঘরা গ্রামের মোজাম্মেল হকের ছেলে।
স্কুল ছাত্রীর ফুফু জানান, মায়ের মৃত্যুর পর ভাইঝি তার কাছে থেকেই ধানঘরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পড়াশুনা করে। ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের বাসায় শুক্রবার ব্যতীত প্রতিদিন সকাল সাড়ে ছয়টার দিকে সে পড়তে যায়। রোববার সকালে প্রধান শিক্ষক অন্যান্যদের নীচে বসিয়ে তার ভাইঝিকে বিছানায় বসে পড়তে বলে। পড়া শেষে অন্যদের চলে যেতে বলে প্রধান শিক্ষক তার ভাইঝির শ্লীলতাহানি করে। বাড়িতে এসে বিষয়টি তিনি জানতে পেরে স্থানীয় ইউপি সদস্য হাফিজুর রহমান, মনিরুজ্জামানসহ কয়েকজনকে অবহিত করেন।
ধারঘরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি আব্দুল খালেক জানান, বিদ্যালয়ের জমিদাতা ও ১৯৯৫ সালে প্রতিষ্ঠাতা প্রধান শিক্ষক জাকির হোসেনের সঙ্গে মাঠে ফুটবল খেলাসহ বিভিন্ন ইস্যুতে বিরোধ চলে আসছিল মনিরউদ্দন, মোকছেদ, তার ছেলে আল মামুন ও ভাগ্নে রিপনসহ একটি মহলের। জাকির হোসেন রোববার সকালে তার বাড়িতে পঞ্চম শ্রেণির এক স্কুল ছাত্রীর শ্লীলতাহানি করেছে এমন অভিযোগ পেয়ে সোমবার সকাল ৯টার দিকে তিনি বিদ্যালয়ে এসে বিস্তারিত জানার চেষ্টা করছিলেন। স্থানীয় ইউপি সদস্য হাফিজুর রহমানসহ কয়েকজন বিষয়টি নিয়ে সোমবার বিকেলে শালিসি সভার আহবান করেন। এরমধ্যে মনিরউদ্দিনের নির্দেশে রিপন, আল মামুনসহ কয়েকজন এসে অফিস কক্ষে ঢুকে প্রধান শিক্ষককে মারপিট করে। তাকে রক্ষায় এগিয়ে এলে সহকারি শিক্ষিকা তাহমিনা খাতুনের কান ছিড়ে নেওয়া হয়। সভাপতি হিসেবে হামলাকারিদের থামতে বলায় তাকেও মারপিট করা হয়। ভয়ে সহকারি শিক্ষক ফারহানা, সাজেদা ও আফরোজা দৌড়ে একটি ঘরে ঢুকে দরজা বন্ধ করে দেয়। বিকেল তিনটার দিকে পুলিশ প্রধান শিক্ষক জাকির হোসেনকে আটক করে।
জাকির হোসেনের স্ত্রী কাজীরহাট মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারি প্রধান শিক্ষিকা ফারহানা সুলতানা অভিযোগ করে বলেন, একটি মহল তার স্বামীকে ওই বিদ্যালয় থেকে অনেক আগে থেকেই সরাতে চেয়েছিল। সেই পরিকল্পনার অংশ হিসেবে তার বিরুদ্ধে স্কুল ছাত্রীকে দিয়ে পরিকল্পিত শ্ল¬ীলতাহানির নাটক সাজানো হয়েছে।
কলারোয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মারুফ আহম্মদ জানান, ছাত্রীর শ্ল¬ীলতাহানির অভিযোগে প্রধান শিক্ষক জাকির হোসেনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এ ঘটনায় ওই ছাত্রীর ফুফু বাদি হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ১০ধারায় সোমবার থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। মঙ্গলবার জাকির হোসেনকে আদালতে পাঠানো হবে।