সুফিয়া কী বয়স্ক ভাতা পাবে না!


প্রকাশিত : নভেম্বর ৮, ২০১৮ ||

পত্রদূত ডেস্ক: সত্তর বছর বয়স হলেও সুফিয়া বেগম বয়স্ক ভাতা পাননি। জোটেনি অন্যান্য সুবিধাও। তিনি কালিগঞ্জ উপজেলার মথুরেশপুর ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ড গণপতি গ্রামের ভূমিহীন হতদরিদ্র মৃত ইউসুফ আলীর স্ত্রী মোছা. সুফিয়া বেগম। সত্তরোর্ধ এই বৃদ্ধা আক্ষেপ করে বলেন, আমার ভাগ্যে জোটেনি বয়স্ক বা বিধবা ভাতা, ভিজিএফ, ভিজিডিসহ কোন সুযোগ সুবিধা। বার বার সাহায্য চেয়েও পাইনি। তার পরিবারে বিভিন্ন নির্বাচনে ৩ জন সদস্য নির্বাচিত হলেও কখনও সুবিধা দেননি বৃদ্ধাকে। মথুরেশপুর ইউপি চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান গাইনের নিকট জানতে চাইলে তিনি এ প্রতিনিধিকে বলেন, ওনাকে তো ওয়ার্ডের মেম্বর কার্ড করে দিবেন। আমি বিষয়টা খোঁজ নিবো। ইউপি সদস্য শেখ আলাউদ্দীন সোহেলের নিকট জানতে চাইলে তিনি বলেন, সুফিয়া বেগম বয়স্ক ভাতাসহ সরকারের অনেক সুযোগ সুবিধা পাওয়ার কথা। কিন্তু বিগত মেম্বরগণ তাকে দেখেননি। আমি ইতোমধ্যে তাকে বয়স্ক ভাতা প্রদানের তালিকায় নাম দিয়েছি। সরকারের অনেক সুবিধা আমি তাকে দিয়ে আসছি। এদিকে সুফিয়া বেগম আরও বলেন আমার একটামাত্র পুত্র সন্তান। সেও দিনমজুর এবং শারিরীকভাবে অসুস্থ। আমাকে সে খোঁজ খবর নেয়া ছাড়া কিছুই দিতে পারেনা। আমি চলাচল করতে পারি না, হাতে ভর দিয়ে বসে বসে পথে চলাচল করতে হচ্ছে। বৃহস্পতিবার বিকালে নাজিমগঞ্জ বাজার থেকে ঔষধ নিয়ে ফেরার সময় এসব উক্তি করে বিলাপ করতে করতে আকুতি করতে থাকেন সত্তর উদ্ধো এই বৃদ্ধা। তিনি হাটে বাজারের দোকান মালিক ও পথচারীদের নিকট থেকে কাছে সাহার্য্য নিয়েই জীবিকা নির্বাহ করে থাকেন। অথচ সরকারের নানাবিধ সহায়তা, আশ্রায়ণ ও গৃহয়াণ প্রকল্প, ভাতা বা খাদ্য সহায়তার মাধ্যমে এই হত দরিদ্র মহিলাটির মুখে একটু হাসি ফুটুক এই প্রত্যাশা করে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও জেলা প্রশাসকের দৃষ্টি আর্কষণ করেছেন উপজেলা এলাকার সুধিসমাজ।