পাইকগাছায় সাংবাদিকদের সাথে অশোভন আচরণের অভিযোগ: ক্ষোভ


প্রকাশিত : জানুয়ারি ১, ২০১৯ ||

কপিলমুনি (খুলনা) প্রতিনিধি: একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে পাইকগাছার সাংবাদিকদের কার্ড বিতরণে সহকারী রিটার্নিং অফিসার ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার জুলিয়া সুকায়নার বিরুদ্ধে স্বেচ্ছাচারিতা ও অনিয়মের অভিযোগ করেছেন সংবাদকর্মীরা। এতে সাংবাদিকদের মধ্যে তীব্র ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। পাইকগাছার জাতীয় ও আঞ্চলিক পত্রিকার প্রতিনিধিগণ সহকারী রিটার্নিং অফিসার জুলিয়া সুকায়নার সাথে যোগাযোগ করতে তার দপ্তরে গেলে নির্বাচনের তথ্য সংগ্রহের জন্য সাংবাদিক পরিচয়পত্র দেওয়া হবে বলে ৩দিন ঘুরিয়ে তা না দিয়ে তিনি সাংবাদিকদের সাথে অশোভনমূলক আচরণ করেন বলে সাংবাদিকরা অভিযোগ করেন। গত ২৮ ও ২৯ ডিসেম্বর সাংবাদিকরা কার্ড সংগ্রহের জন্য তার দপ্তরে গেলে তিনি এ অশোভনমূলক আচরণ করেন। ফলে পাইকগাছার কর্মরত সাংবাদিকদের মধ্যে তীব্র ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।
এ ঘটনায় সোমবার দুপুর ১২টায় সম্মেলিত পাইকগাছা উপজেলা সাংবাদিক জোটের উদ্যোগে পাইকগাছায় প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। প্রতিবাদ সভায় ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ৪দিন আগে থেকেই আবেদনকারী সাংবাদিকরা তার দপ্তরে খোঁজ নিতে থাকেন কবে কার্ড প্রদান করা হবে। ২৮ ডিসেম্বর সাংবাদিকরা তার অফিসে গেলে তিনি জানান, কার্ড এখনো আসেনি, আসলে দেওয়া হবে, এ কার্ডতো আপনাদের জন্য, আসলে পরে দেওয়া হবে। এরপর তিনি একটা সময় বলেন, আপনারা কেনো এসেছেন, আপনাদের কি আমি ডেকেছি ? তারপর ২৯ ডিসেম্বর সকাল ১১টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত কার্ড আসলে পরে কার্ড দেওয়া হবে বলে সাংবাদিকদের জানানো হয়। মজার ব্যাপার হলো তখনও তিনি বলেন, আপনার কেনো এসেছেন, আমি কি আপনাদের ডেকেছি?’
সাংবাদিকরা বলেন, ‘তিনি এ বিষয়ে স্বেচ্ছাচারিতা করে ক্ষমতার অপব্যবহার করেছেন। সম্মিলিত পাইকগাছা সাংবাদিক জোটের আহবায়ক প্রকাশ ঘোষ বিধানের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন শেখ সেকেন্দার আলী, শেখ আব্দুল গফুর, শেখ মোসলেহ উদ্দীন বাদশা, শেখ দ্বীন মাহমুদ, একে আজাদ, পলাশ কর্মকার, তপন পাল, রফিকুল ইসলাম খান, মহানন্দ অধিকারী মিন্টু, জগদীশ দে, জিএম মোস্তাক আহম্মেদ, প্রবীর জয়, সাইফুল ইসলাম, দ্বীপ অধিকারী, রিপন হোসেন প্রমুখ।