শহরে ব্যাংকার স্বামীর হাতে আহত স্কুল শিক্ষক স্ত্রী


প্রকাশিত : জানুয়ারি ১১, ২০১৯ ||

পত্রদূত ডেস্ক: স্বামীর মারপিটের ঘটনায় আহত হয়ে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে স্ত্রী ফারজানা। স্বামী সাতক্ষীরা সদর উপজেলা শাখার জনতা ব্যাংকের সিনিয়র অফিসার। তিনি উত্তর কাটিয়া দাশপাড়া স্কুল সংলগ্ন মৃত আব্দুর রউফের ছেলে রাসেল আহমেদ। ফারজানা একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষিকা।
আহত ফারজানা জানায়, বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৮টায় ছেলে(৫) স্কুলে যাওয়াকে কেন্দ্র করে স্বামী রাসেল আমাকে প্রথমে ঘরের দেয়ালে ধাক্কা দিয়ে মাথা ফাটিয়ে দিয়েও ক্ষ্যান্ত হয়নি। পরে ব্যালন দিয়েও বেধড়ক মারপিট করে। এসময় আমার মাথা থেকে প্রচুর রক্তক্ষরণ হলেও সে ও তার মা কেউই আমার কাছে আসেনি বা ডাক্তার দেখানোর প্রয়োজনও মনে করেনি। এঘটনা বুঝতে পেরে প্রতিবেশিরা গ্রাম্য ডাক্তার দিয়ে আমাকে চিকিৎসা করায়। পরিস্থিতি অবনতি হলে বিকালে প্রতিবেশীদের সহায়তায় আমাকে সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ফারজানা আরো জানায়, আমার শাশুড়ীর উষ্কানিতে ছেলে হওয়ার পর থেকে রাসেল আমাকে কারণে- অকারণে মারপটি করে। সব সময়ে রেগে থাকে। সামান্য বিষয় নিয়ে সব সময় ঝগড়া, মারপিট করে থাকে। এ কারণে প্রায় ৩ বছর আগে সাতক্ষীরা সদর থানায় একটি এজাহার দায়েরও করা আছে। শুধুমাত্র একমাত্র ছেলের ভবিষ্যতের দিকে তাকিয়ে তার সাথে সংসার করার চেষ্টা করেছি। কিন্তু দিন দিন আমার উপর নির্যাতনের মাত্রা বেড়ে গেছে। এনিয়ে রাসেলের আত্মীয় ও আমার আত্মীয় স্বজনদের নিয়ে কয়েকবার বসাবাসি হয়েছে। কিন্তু ধুর্ত রাসেল কি কারণে আমাকে নির্যাতন করে তার কোনো স্বদত্তোর দিতে পারেনি।
এবিষয় ব্যাংকার স্বামী রাসেল আহমেদের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, এটা তো পারিবারিক ব্যাপার। ইতোমধ্যে আমরা মিটিয়ে ফেলেছি বলে তিনি বিভিন্ন রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দের পরিচয় টানেন।