চুপড়িয়ায় বসতঘরে বেড়া আসবাবপত্র ভাংচুরের অভিযোগ


প্রকাশিত : ফেব্রুয়ারি ১১, ২০১৯ ||

নিজস্ব প্রতিনিধি: আদালতে ১৪৫ ধারায় মামলা থাকার পরও সদর উপজেলার চুপড়িয়া গ্রামে একটি বসতঘরে বেড়া ও আসবাবপত্র ভাংচুর করার অভিযোগ উঠেছে। মামলা সূত্রে জানা যায়, সদর উপজেলার চুপড়িয়া মৌজায় জেএল নং ৫৯ সাবেক দাগ ৩০৭২ বর্তমান ডিপি খতিয়ান ১৫০০ চূড়ান্ত প্রকাশিত খতিয়ান ৬৩০ হাল দাগ-৫১১৮ দাগের ৩১ শতক জমির মধ্যে থেকে ৬ শতক জমি বিরোধীয় সম্পতি। কিন্তু এই ৬ শতক জমি বিরোধ চুপড়িয়া গ্রামের মৃত মফেজউদ্দীনের ছেলে সামছুর ও মোহাম্মদ আলির। এরা আপন দুই ভাই। কিন্তু সামছুর সরল সহজ ও নিরক্ষর ব্যক্তি থাকায় ৬ শতকের মধ্যে সাড়ে ৫ শতক জমি সামছুরের কাছ থেকে রেজিস্ট্রি করে নেয় তার আপন ভাই মোহাম্মদ আলি। তবে ওই ৬ শতক জমি দীর্ঘদিন যাবত ভোগদখল ও বসবাস করে আসছে সামছুর। কিন্তু জমিটি কিছু অংশ ভাইয়ের কাছ থেকে মোহাম্মদ আলি প্রতারণা করে রেজিস্ট্রি করে নেওয়ার কারণে সামছুর তার ওয়ারেশ সূত্রে ও ভোগদখল থাকার সূত্রে সামছুর আলি বাদী হয়ে গত ৩০ জানুয়ারি ১৯ তারিখে সাতক্ষীরা অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ১৪৫ ধারা মামলা করেন। যার মামলা নং ১২৮। এদিকে সামছুরের ছেলে গোলাম রসুল অভিযোগ করে বলেন আদালতে মামলা থাকার স্বর্তেও সামছুরের ভাই মোহাম্মদ আলি ও চুপড়িয়া গ্রামের আওয়ামী লীগের কথিত নেতা আমিরুল ইসলামের নেতৃত্বে চলতি মাসে গত শনিবারে বেলা ১১টার সময় বে-আইনী ধারালো অস্ত্রশস্ত্রসহ একদল ভাড়াটি গুন্ডাপান্ডা লোকজন নিয়ে সামছুরের বাড়িতে প্রবেশ করে ওই জমির উপর থাকা বসতঘরে বেড়াসহ আসবাবপত্র ভাংচুর করে হুমকি দেয়। এব্যাপারে প্রশাসনের কাছে আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন পরিবারটি।