বেনাপোলে ফুলের চাহিদা ও দাম বেশী থাকায় লাভবান হচ্ছে ক্রেতা বিক্রেতা


প্রকাশিত : ফেব্রুয়ারি ১৩, ২০১৯ ||

এমএ রহিম, বেনাপোল (যশোর): আসছে তিনটি উৎসবকে ঘিরে বেশি লাভের আশায় ব্যস্ত সময় পারছেন যশোরের শার্শা বেনাপোলের ফুল চাষী ও ব্যবসায়িরা। ফুলের চাহিদা ও দাম বেশি থাকায় লাভবান হচ্ছে ক্রেতা বিক্রেতাসহ চাষীরা। শার্শায় উৎপাদিত ফুল রপ্তানি হচ্ছে দেশের বিভিন্ন জেলা শহরে এতেই খুশি চাষী।
ফুল কার না ভাল লাগে উৎসব আনুষ্ঠানিকতায় ফুলের কদর ও চাহিদা বাড়ছে দিন দিন। আসছে পহেলা ফাল্গুন, বিশ্ব ভালবাসা দিবস ও অমর ২১ ফেব্রুয়ারি। এই তিন উৎসবের বাজার ধরতে ব্যাস্ত সময় পার করছেন চাষীরা। ফুল খেতে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন তারা। বিভিন্ন এলাকা থেকে আসছেন ব্যবসায়িরা। এবার ফুলের দাম ভাল পাওয়ায় লাভ বান হচ্ছেন তারা-জরবেরা-গ্লাডুলার্স, রজনী, গাধাও গোলাপ ফুলের বিক্রি বাড়ছে। দ্বিগুন বেড়েছে এসব ফুলের দাম ১৫ দিন আগে রজনী বিক্রি হয়েছে দেড় টাকা ও গ্লাডুলার্স ৩/৪টাকা এখন দ্বিগুন দাম পাচ্ছেন চাষী। ফুল চাষী জাবের আলী ও আব্দুর রশিদ বলেন এবার ফুলের দাম ভাল পেয়ে দায় দেনা শোধ হয়েছে তাদের। আগামীতে বেশি ফুলের চাষ করবেন তারা। তবে এলাকায় একটি ফুলের ক্লোল্ড স্টোরেজসহ ফলের বাজার থাকলে আরো লাভবান হতেন তারা।
এবার ফুলের দাম ভাল। বাজারে কেনা বেচাও ভাল। ফলে লাভবান হচ্ছেন চাষী ও ব্যবসায়িরা। দিন দিন বাড়ছে ফুলের চাহিদা। শার্শা বেনাপোলে অর্থকারী ফসল হিসেবে ফুলের চাষ বাড়ছে। ফলন ও দাম ভাল পেয়ে লাভবান হচ্ছে চাষী-সহযোগিতা দিচ্ছেন কৃষি বিভাগ এমনটাই জানান শুভঙ্কর মোড়ল শুভ-উপ-সহকারি কৃষি কর্মকর্তা-শার্শা যশোর। অনেক ক্রেতা তাদের পছন্দের মানুষের জন্য ফুল নিতে আসছেন কৃষি ক্ষেতে। বেশি দামেই কিনছে ফুল। হাতের কাছে ফুল ফেয়ে খুশি তারা।
শার্শা উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সৌতম কুমার শীল বলেন, চলতি মৌসুমে ১১০ বিঘা জমিতে হয়েছে বিভিন্ন জাতের ফুল চাষ। এ চাষে কৃষক লাভবান হওয়ায় বাড়ছে চাষ। সামনে তিনটা উৎসবে ফুলের বাজার বাজার ধরতে ব্যস্ত সময় পার করছে চাষীরা। তাদেরকে প্রশিক্ষণ পরামর্শ ও সহযোগিতা দিচ্ছে উপজেলা কৃষি অধিদপ্তর।