ছুটির দিনে রাজ্জাক পার্কের বই মেলায় উপচে পড়া ভিড়


প্রকাশিত : মার্চ ৯, ২০১৯ ||

আসাদুজ্জামান সরদার: শুক্রবার ছুটির দিন থাকায় সাতক্ষীরার বই মেলায় বইপ্রেমীদের উপচে পড়া ভিড় লক্ষ্য করা গেছে। বিকালের পর সব বয়সী মানুষ দলে দলে বইমেলায় আসতে শুরু করেছে। শুক্রবার শহিদ আব্দুর রাজ্জাক পার্কস্থ মেলার গিয়ে এমন চিত্রই দেখা গেছে। শিশুদের উপস্থিতি ছিলো চোখে পড়ার মতো। তাদের পিতা-মাতার হাত ধরে বই মেলায় আসে তারা। নিজ নিজ পছন্দের বইগুলি কিনতে প্রকাশনীগুলোতে ভিড় করছেন তারা।
মেহেদি হাসান মিলন নামে মেলায় আগত দর্শনার্থী বলেন, শুক্রবার ছুটির দিন বলে কয়েক বন্ধু মিলে সাতক্ষীরা বই মেলায় আসলাম। সাতক্ষীরায় অনেক বছর পর বই মেলা হচ্ছে এটা আনন্দের বিষয়। সত্যি অনেক ভালই লাগছে। পছন্দের কয়েকটি বই কিনলাম।
বাবা মোসলেম আলীর হাত ধরে মেলায় ঘুরতে আসা শিশু রাজন এবং রোহান বলে, বাবার সাথে মেলায় এসেছি। খুব ভালো লাগছে। শিশু রাজন বলে, বই পড়তে আমার খুব ভালো লাগে। বই পড়া আমার প্রিয় শখ। বাবা আমাকে ‘ঠাকুমার ঝুলি’ কিনে দিয়েছে, খুব ভালো লাগছে।


সাতক্ষীরা কৃতি সন্তান ও জনপ্রিয় লেখক খায়রুল বাসার বলেন, আমার জেলায় বই মেলা হচ্ছে এটা অনেক ভালো লাগছে। আমি প্রতিদিনই মেলাই থাকবো। গতকালকের তুলনায় আজ বই প্রেমিদের উপস্থিতি বেড়েছে। সাতক্ষীরার মতো জেলায় বেশ ভালেই বই বিক্রি হচ্ছে এতে আমরা খুশি। এই মেলায় আমার ৪২টি আইটেমের বই নিয়েছি। এর মধ্যে অনুবাদ মূলক ‘মানুষের চিন্তাশক্তি, কবিতার বই ‘হাজার বছরের বাংলা কবিতা ও আবৃত্তি এবং আমার লেখা ‘সৈনিক’ নামক বইটি পাঠকের হৃদয় কেড়েছে। সামনের দিনগুলি বই প্রেমিদের ভিড় আরও বাড়বে বলে তিনি প্রত্যাশা করেন তিনি।
ঢাকা থেকে আসা বাংলা একাডেমী স্টলের বিক্রেতা সাইদুল ইসলাম বলেন, মেলা গতকাল শুরু হয়েছে। গতকালের তুলনায় আজ আমাদের বেচা বিক্রি বেড়েছে। আমাদের স্টলে বাংলা ডিকশনারী, বাংলাদেশের লোকজ সংস্কৃতি সাতক্ষীরা ইতিহাস নামক বইটির ব্যাপক চাহিদা লক্ষ্য করা গেছে।