কপিলমুনিতে বাক প্রতিবন্ধী কিশোরী মা: বাবা কে?


প্রকাশিত : মার্চ ১৫, ২০১৯ ||

কপিলমুনি (খুলনা) প্রতিনিধি: কপিলমুনিতে বাক প্রতিবন্ধী পাগলী (১৪) নামের এক কিশোরী মা হয়েছেন। এলাকাবাসির প্রশ্ন বাবা কে? এলাকার এক প্রভাবশালী ব্যক্তির বিরুদ্ধে ওই প্রতিবন্ধী কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। যা বর্তমানে ওই কিশোরীর পরিবারের কাছে ৬/৭ মাসের বেশি সময় প্রকাশ পেয়েছে। অন্যদিকে অসহায় মা তার বাক প্রতিবন্ধী কন্যাকে নিয়ে চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে। এ ব্যাপারে অসহায় পরিবারটি পাইকগাছা থানা পুলিশের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।
সূত্রে প্রকাশ, কপিলমুনির নোয়াকাটী এলাকার আমতলা এলাকার আরশাদ ফকিরের বাক প্রতিবন্ধী কন্যা পাগলী একই এলাকায় বসবাসের সুবাদে ওই প্রভাবশালী বাড়িতে যাতায়াত করতো। এরপর তার উপর লোলুপ দৃষ্টি পড়ে ওই ব্যক্তির। একপর্যায় কিশোরীকে প্রায় সময় বিভিন্ন প্রকার ভয়ভীতি দেখিয়ে তাদের বাড়ির দ্বিতল ভবনের একটি রুমে নিয়ে ওই ব্যক্তি দীর্ঘদিন ধরে তার সাথে অসামাজিক কার্যকলাপ চালিয়ে আসছিল। এমতাবস্থ’ায় সে অন্ত:সত্তা হয়ে পড়ে। সম্প্রতি সময়ে কিশোরী হঠাৎ করে অসুস্থ হয়ে পড়লে পরিবারের সদস্যরা তাৎক্ষণিক কপিলমুনির এক ডাক্তারের কাছে নিয়ে গেলে কিশোরীর অন্ত:স্বত্তার বিষয়টি পরিবারের লোকজনের কাছে প্রকাশ পায়। যা বর্তমানে ৬/৭ মাসে গড়িয়েছে বলে প্রাথমিক ভাবে জানাযায়। পরবর্তীতে আবারো বিষয়টি গভীরভাবে অবলোকন করার জন্য আসহায় পরিবার ওই প্রভাবশালীর ছত্র-ছায়ায় পাইকগাছা উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে নিয়ে যায়। সেখানে গিয়ে একই অবস্থা ধরা পড়ায় অন্ত:স¦ত্তা কিশোরীসহ আসহায় পরিবারটি ভেঙ্গে পড়েছে। পর্যায়ক্রমে কানে কানে এলাকায় চাউর হলে শুরু হয় প্রভাবশালী ঐ ব্যক্তি কর্তৃক ঘটনাটি ধামা চাপা দেওয়ার জোর প্রচেষ্টা। শুধু তাই নয়, শুরু হয় দেনদরবারও। দফায় দফায় চলছে বৈঠক। পাশাপাশি প্রশাসনের নজরে না আনার প্রক্রিয়া। এ ব্যাপারে বাক প্রতিবন্ধী কিশোরীর পরিবার সহ এলাকার সচেতন মহল পাইকগাছা থানা পুলিশের জরূরী হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।