তালার খলিষখালিতে আওয়ামী লীগ অফিসে হামলা: আহত ৩


প্রকাশিত : মার্চ ১৫, ২০১৯ ||

খলিষখালি (পাটকেলঘাটা) প্রতিনিধি: তালা উপজেলার খলিষখালি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি সরদার কামরুজ্জামান, গৌতম ঘটক ও ৮নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সুলতান সরদারকে দল থেকে বহিস্কারের কারণ দর্শানোর নোটিশ প্রদান করেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সমীর কুমার দাশ।

 

এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে বুধবার রাত ১০টায় খলিষখালি বাজারের আওয়ামী লীগ অফিসে ছাত্রলীগের সভাপতি ফারদিন হোসেন দীপের নেতৃত্বে হামলা চালিয়ে চেয়ার-টেবিল ভাংচুর ও সমীর দাশ, সরদার শরিফুল ইসলাম এবং নীল কোমল দাশকে বেধড়ক মারপিট করে আহত করে। এ খবর ছড়িয়ে পড়লে আওয়ামী লীগের বিভিন্ন মহলে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে।

 

এ ঘটনার প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় খলিষখালি বাজারে সমীর দাশের নেতৃত্বে একটি প্রতিবাদ সমাবেশের আয়োজন করে। কিন্তু সমাবেশের পূর্বে সমীর দাশের পক্ষে পাটকেলঘাটাসহ বিভিন্ন অঞ্চল থেকে একদল লাঠিয়াল বাহিনী খলিষখালি বাজারে মহড়া দেয় এবং আওয়ামী লীগ নেতা সুজিত হোড় ও গৌতম ঘটককে খুঁজতে থাকে। খবর পেয়ে খলিষখালি পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ নিখিল বিশ্বাসসহ সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে ঘটনা স্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। এছাড়াও পাটকেলঘাটা থানার অফিসার ইনচার্জ মো. রেজাউল ইসলাম, জেলা সহকারী পুলিশ সুপার অপু সরোয়ার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

 

এদিকে আওয়ামী লীগের দু’গ্রুপের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ছবি তুলতে গেলে দৈনিক পত্রদূতের প্রতিনিধি শাহিন আলমকে সমীর বাহিনী বেধড়ক মারপিট করে জখম করে। অন্যদিকে সমীর গ্রুপের পক্ষে প্রতিবাদ সমাবেশে প্রধান অথিতির বক্তব্য রাখেন তালা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ঘোষ সনৎ কুমার, ভাইস চেয়ারম্যান ইখতিয়ার হোসেন, খলিষখালি ইউপি চেয়ারম্যান সাংবাদিক মোজাফ্ফার রহমান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সমীর কুমার দাশ। সমাবেশে বক্তারা উপজেলা নির্বাচনের পরে পাল্টা জবাব দিবেন বলে হুশিয়ার করেন। এদিকে আওয়ামী লীগের এই দু’গ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনায় খলিষখালি ইউনিয়নে আতঙ্ক বিরাজ করছে।