প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ ও প্রতিবেদকের বক্তব্য


প্রকাশিত : এপ্রিল ১২, ২০১৯ ||

গত ৬ এপ্রিল ২০১৯ দৈনিক পত্রদূতের প্রথম পৃষ্ঠায় ‘রেডক্রিসেন্টের সামনে গরীবের অবৈধ স্থাপনা সরিয়ে নির্মিত হচ্ছে এমপি’র ভাইয়ের পাকা স্থাপনা’ শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ জানিয়েছেন সাতক্ষীরা পৌরসভার প্যানেল মেয়র ফারহা দিবা খান সাথী। প্রতিবাদে বলা হয়েছে, গত ইং ৩০.০৪.১৭ তারিখে পৌর পরিষদের সাধারণ সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ইং ২১.০৫.১৭ তারিখে শহীদ নাজমুল সরণীতে ১৭ ফুট বাই ৬ ফুট জায়গা মুনজিতপুরের মৃত মীর এশরাক আলীর পুত্র মীর মইনুল ইসলামকে উক্ত রাস্তার পাশ্ববর্তী বন্দোবস্তকৃত অন্যান্য দোকানের সাথে সামঞ্জস্য রেখে বরাদ্দ প্রদান করা হয়েছে। সংবাদের দ্বিতীয় অংশে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সাতক্ষীরা পৌরসভার একজন কাউন্সিলরের বরাত দিয়ে যে বক্তব্য উল্লেখ করা হয়েছে, তা প্রতিবাদকারীর জানামতে সত্য নয় বলে দাবি করা হয়েছে। প্রতিবাদে প্রকাশিত সংবাদের তীব্র প্রতিবাদ জানানো হয়েছে।
প্রতিবেদকের বক্তব্য:
প্রকাশিত সংবাদে গরীবের স্থাপনা সরানো, ডিসিআরকৃত ১৭ ফুট বাই ৬ ফুটের স্থলে নির্মিত ভবনের উপরতলায় সামনে রাস্তার দিকে বাড়ানো ও পিছনে কমপক্ষে ৩ ফুট বাড়ানো এবং ডিসিআরকৃত জমিতে পাকা স্থাপনা নির্মাণের কথা বলা হয়েছে। কিন্তু প্রতিবাদে সুনিদিষ্ট এসব তথ্য সম্পর্কে কোন কিছু উল্লেখ করেন নি।