তালার নির্বাচনী সহিংসতার শিকার নারীর অবস্থা আশঙ্কাজনক


প্রকাশিত : মে ১১, ২০১৯ ||

তালা (সদর) প্রতিনিধি: তালার মেশেরডাঙ্গা গ্রামে বিগত ইউপি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের হামলায় গুরুতর আহত সেই নারী নমিতা ব্যানার্জী দীর্ঘ ৩ বছরেও সুস্থ হয়নি। দেশ ও বিদেশে তাকে চিকিৎসা করাতে যেয়ে ইতোমধ্যে নমিতার পরিবার আর্থিকভাবে নি:স্ব হয়ে পড়েছে। কিন্তু এরইমধ্যে নমিতা ব্যানার্জীর শারীরিক অবস্থার আবারও অবনতি হওয়ায় তাকে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়েছে। সেখানে চিকিৎসাধিন থাকলেও তিনি আশঙ্কামুক্ত না হওয়ায় তাঁর পরিবারের সদস্যদের মধ্যে এখন উদ্বেগ ছড়িয়ে পড়েছে।
জানা গেছে, বিগত ২০১৬ সালের ২২ মার্চ অনুষ্ঠিত তালা উপজেলার খেশরা ইউনিয়নের ১নং (রাজাপুর, মেশেরডাঙ্গা) ওয়ার্ডে ইউপি সদস্য পদে নির্বাচন করে নিতাই পদ মন্ডল পরাজিত হন। এই পদে বিজয়ী ইউপি সদস্য নিমাই সানার নেতৃত্বে অভিজিৎ মন্ডল, শীবপদ সানা ও সত্যজিৎ মন্ডলসহ ৪০/৫০জন দূর্বৃত্ত প্রতিহিংসা পরায়ন হয়ে পরদিন ২৩ মার্চ দুপুরে পরাজিত প্রার্থী নিতাই পদ মন্ডলের সমর্থক মেশেরডাঙ্গা গ্রামের প্রভাষক আদিত্য ব্যানার্জীর বাড়িতে হামলা চালায়। হামলাকারীরা ভাংচুর ও লুটপাটসহ পরাজিত প্রার্থী নিতাইপদ মন্ডলের সমর্থকদের মারপিট করে। হামলায় প্রভাষক আদিত্য ব্যানার্জী, নমিতা ব্যানার্জী, লতা, দিপঙ্কর ব্যানার্জী, ষষ্ঠি ব্যানার্জী, পুষ্প ব্যানার্জী ও গোবিন্দ মন্ডল আহত সহ ৭জন আহত হন। আহতদের মধ্যে গুরুতর আহত কার্তিক ব্যানার্জীর স্ত্রী নমিতা ব্যানার্জীকে তালা হাসপাতাল থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য সেসময় খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরন করা হয়েছিল। সেখানে তার শারীরিক অবস্থার অবনতী হলে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়।
প্রভাষক আদিত্য ব্যানার্জী জানান, দুর্র্র্বৃত্তদের হামলায় মাথায় গুরুতর আঘাত পাওয়া নমিতা ব্যানার্জী ঢাকা থেকে একটু সুস্থ হলে তাকে বাড়ি আনা হয়। কিন্তু পুরোপুরি সুস্থ না হওয়ায় তাকে ভারতসহ দেশের একাধিক স্থানে বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের কাছে চিকিৎসা করানো হচ্ছিল। প্রায় ৩বছর ধরে বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের মাধ্যমে চিকিৎসা করানো হলেও পুরোপুরি সুস্থ্য হতে পারেনি নমিতা ব্যানার্জী। গত শুক্রবার মাথায় আঘাত জনিত কারনে আবারও অসুস্থ্য হয়ে পড়েন তিনি। ওইদিনই চিকিৎসার জন্য তাকে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করালেও এখনও তিনি আশঙ্কামুক্ত নন। যে কারণে তার পরিবারের মাঝে এখন উদ্বেগ ছড়িয়ে পড়েছে।
প্রভাষক আদিত্য ব্যানার্জী আরো জানান, নির্বাচনী প্রতিহিংসায় হামলার ঘটনায় সেসময় তালা থানায় হামলাকারীদের বিরুদ্ধে একটি মামলা (১২/১৬) দায়ের করা হয়েছিল, যা এখনও বিচারাধিন রয়েছে।
এবিষয়ে তালা থানার ওসি মো. মেহেদী রাসেল জানান, হামলার ঘটনায় সেসময় দায়ের হওয়া মামলা তদন্ত করে ইতোমধ্যে জড়িতদের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দেয়া হয়েছে।