এরা ছেলেধরা!


প্রকাশিত : মে ১৩, ২০১৯ ||

বিশেষ প্রতিনিধি: ছেলেধরার অপবাদে ও রোহিঙ্গা সন্দেহে আরও ৩ জনকে আটক করে পুলিশের কাছে সোপর্দ করেছে জনতা। শনিবার সন্ধ্যার পর উপজেলার মৌতলা, নাজিমগঞ্জ ও রতনপুর থেকে ওই তিনজনকে আটক করা হয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে তাদের থানায় নিয়ে আসে। বিষয়টি নিয়ে একেকজন একেক মন্তব্য করেছেন। মানসিক ভারসাম্যহীন এবং ক্ষুধার্ত মানুষগুলোকে ধরে জনতা পুলিশে সোপর্দ করায় ‘বিরাট বাহাদুরী’ দেখিয়েছেন বলে মন্তব্য করেন থানা চত্ত্বরের অনেকেই। ক্ষুধার তাড়নায় রোগে শোকে মানসিকভাবে পর্যদস্তু হয়ে উদাসীনভাবে ঘুরে বেড়ানো এ মানুষগুলো নাকি ছেলেধরা। ওরা নাকি রোহিঙ্গা! ওদের ধরে পুলিশে দিয়ে বিরাট বাহাদুরী দেখিয়েছেন জনতা।

থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হাসান হাফিজুর রহমান জানান, গত শনি ও রবিবার বিভিন্ন স্থানে জনতার হাতে আটক ৩ জন নারীসহ মোট ১১ জনকে আটকের খবর পেয়ে তাদেরকে থানায় আনা হয়। যাচাই বাছাই করে তাদের মানসিক ভারসাম্যহীন বলে মনে হয়েছে। এরমধ্যে একজনকে তার পিতার কাছে বুঝিয়ে দেয়া হয়েছে। অপর ১০ জনকে রবিবার দুপুরে বিজ্ঞ আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। তিনি আরও জানান, জনগণ অপপ্রচার ও গুজবে বিভ্রান্ত হয়ে ভারসাম্যহীন নারী ও পুরুষদের আটক করছে। কিছু কিছু ক্ষেত্রে আটককৃতদের মারধর করা হচ্ছে যা অত্যন্ত দু:খজনক। তিনি সন্দেহজনক কাউকে দেখলে দ্রুত পুলিশকে তথ্য প্রদান এবং আটককৃতদের শারীরিক নির্যাতন না করার জন্য আহ্বান জানিয়েছেন।



error: Content is protected !!