মামলা করে বাড়ি ছাড়া কলারোয়ার আওয়ামী লীগ নেতা!


প্রকাশিত : মে ১৫, ২০১৯ ||

 

নিজস্ব প্রতিনিধি: মামলা করে বাড়ি ছাড়া কলারোয়ার এক আওয়ামী লীগ নেতা। তিনি নাকি বাড়ি উঠতে পারছেন না। তিনি অভিযোগ করেছেন, পারিবারিক জমি-জমা সংক্রান্ত বিরোধের জেরে আ’লীগ নেতা আমির হোসেনের পরিবার প্রাণের ভয়ে বসতঘরে উঠতে পারছেন না। মনিরুজ্জামান দফাদার ও তার লোকজনের হামলার মুখে বর্তমানে বসতবাড়ি ছেড়ে পালিয়ে থাকছেন তিনি। এ ঘটনায় আমির হোসেন বাদী হয়ে কলারোয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। মামলা নং জিআর ৭৬/১৯।

মামলা সূত্রে জানা যায়, কলারোয়া উপজেলার মানিকনগর গ্রামের মৃত মতলেব দফাদারের ছেলে মো. আমির হোসেনের সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে মৃত জমির উদ্দীন দফাদারের ছেলে মনিরুজ্জামান দফাদারের জমি-জমা সংক্রান্ত বিরোধ চলছিলো। আমির হোসেনের ভোগদখলীয় সম্পত্তি জোরপূর্বক দখলের পায়তারা চালিয়ে যাচ্ছে মনিরুল দফাদার। এ ঘটনার জের ধরে ২০ এপ্রিল বেলা ১১টায় দেশীয় অস্ত্র সস্ত্রে সজ্জিত হইয়া মৃত জমির উদ্দীন দফাদারের ছেলে মনিরুজ্জামান দফাদার ও রুহুল আমিন,  মৃত মুকুল হোসেনের ছেলে লিপু হোসেন, রুহুল আমিনের ছেলে আহসান হাবিব ও নয়ন হোসেন, শফিকুল ইসলামের ছেলে আব্দুল্লাহ সঙ্গবদ্ধভাবে মো. আমির হোসেনের বাড়িতে অবৈধভাবে প্রবেশ করে আমির হোসেনকে মারপিট করতে থাকে, এসময় আমির হোসেনের বাড়িতে বেড়াতে আসা অন্ত:সত্ত্বা মেয়ে রাকিবা (২৭) প্রতিবাদ করলে তাকেও এলাপাতাড়ীভাবে মারপিট করে পা ভেঙে দেয় এবং গলায় থাকা ১ ভরি ওজনের একটি স্বর্ণের চেইন, হাতে থাকা এক জোড়া রুলি ও এক জোড়া কানের দুল খুলে নেয়। এছাড়া ঘরের বিভিন্ন আসবাবপত্র ভাংচুর করে এবং শোকেচে থাকা ১ লক্ষ ৭০ হাজার টাকা, ১টি শাওমী টার্চ মোবাইল ফোন নিয়ে দ্রুত স্থান ত্যাগ করে। এসময় গুরুতর আহত রাকিবা (২৭) কে এ্যামবুলেন্সযোগে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথে সন্ত্রাসীরা এ্যামবুলেন্সটি গতিরোধ করে আটকে রাখে। বিষয়টি তাৎক্ষণিক কলারোয়া থানার সরসকাটি ফাঁড়ির এসআই পারভেজকে অবহিত করলে উনি ঘটনাস্থলে পৌঁছালে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বর্তমানে সার্জারী কনসালটেন্ট ডা. মো. শরিফুল ইসলামের তত্ত্বাবধানে চিকিৎসাধীন রয়েছেন তিনি। পরবর্তীতে চিকিৎসক রাকিবা বেগমের পা ভেঙে যাওয়ার কথা জানালে তিনি বাদী হয়ে সাতক্ষীরার বিজ্ঞ আমলী ৪নং আদালতে একটি মামলা দায়ের করেন। যার স্মারক নং ২১৯। বিজ্ঞ আদালত কলারোয়া থানার অফিসার ইনচার্জকে মামলাটি রজ্জু করার আদেশ দেন। উল্লেখ্য, ২০১৩ সালে ২৯ অক্টোবর সন্ধ্যায় গোড়াতলা মাঠ নামকস্থানে জামায়াতের অর্থ যোগানদাতা মনিরুজ্জামানের ইন্ধনে জয়নগর ইউনিয়ন ৫নং ওয়ার্ড আ’লীগের সভাপতি আমির হোসেনের উপর দেশীয় অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে হামলা চালায় এবং কুপিয়ে জখম করে। স্থানীয় পথচারীরা তাকে উদ্ধার করে কলারোয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। এ ঘটনায়ও কলারোয়া থানায় একটি মামলা চলমান রয়েছে। মামলা নং জিআর ২৯/১৪। মামলাটির ধার্যদিন আগামী ৮ জুলাই-২০১৯। ভুক্তভোগী পরিবার সাংবাদিকদের জানান, বর্তমানে মনিরুজ্জামানের সন্ত্রাসী বাহিনী আমাদের জীবননাশের ভয়ভীতি প্রদর্শন করে যাচ্ছে। এ ব্যাপারে সাতক্ষীরা পুলিশ সুপারসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন পরিবারটি।



error: Content is protected !!