পল¬ী বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়ার নামে অর্থ বাণিজ্যের অভিযোগ


প্রকাশিত : জুন ৪, ২০১৯ ||

শ্যামনগর প্রতিনিধি: শ্যামনগরে ধুমঘাট গ্রামে পল্ল¬ী বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়ার নামে অবৈধভাবে অর্থ বাণিজ্যের অভিযোগ পাওয়া গেছে। সরেজমিনে জানা যায়, ঈশ্বরীপুর ইউনিয়নে ধুমঘাট চরার চক, তেরকাটি চক, হাঁসার চক, কেওড়াতলীর চক, মটের চক গ্রামে বিদ্যুৎ সংযোগ পাইয়ে দিতে এক শ্রেণির লোক অর্থ বাণিজ্যে মেতেছে। নেপথ্যে স্থানীয় ইউপি জনপ্রতিনিধির সম্পৃক্ততার প্রমান মেলে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অঙ্গীকারবদ্ধ, প্রতিটি ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছানো হবে। তারই ধারাবাহিকতায় প্রত্যন্ত অঞ্চল ধূমঘাট চরারচকসহ ওই এলাকায় নতুন বৈদ্যুতিক লাইন অনুমোদিত হয়। বর্তমানে সেখানে বিদ্যুতের খুঁটি স্থাপনের কাজ চলছে কচ্ছপ গতিতে। ধূমঘাটে মামুন, রণজিৎ, অমীয়, জলিল ও শ্রীফলকাটির আতাউর, হাবিবুল্যাহ সংঘবদ্ধ হয়ে প্রতিটি মিটার বাবদ ১৫০০ টাকা নেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এতে কয়েক লক্ষ টাকা নিরীহ মানুষদের জিম্মী করে অর্থ বাণিজ্য করা হচ্ছে। এছাড়া দ্রুত বিদ্যুৎ সংযোগ ও পছন্দনীয় স্থানে খুঁটি বসাতে বিদ্যুৎ কর্তৃক পক্ষকে ম্যানেজ করতে অতিরিক্ত টাকা নেওয়া হচ্ছে বলে স্থানীয়রা জানান। ওই এলাকায় অসাধু দালাল লোকদের অপতৎপতরায় বিদ্যুৎ নতুন গ্রাহকরা অতিষ্ট হয়ে পড়েছে। আব্দুল্যাহ আল-মামুন সহ স্থানীয়রা জানান, উত্তলিত টাকা স্থানীয় ইউপি সদস্য ধীরেন্দ্র নাথ বিশ্বাসের মাধ্যমে ইউপি চেয়ারম্যান জিএম শোকর আলীর কাছে দিতে বাধ্য করা হচ্ছে। শংকরকাটি সংলগ্ন কাচিহারনিয়া গ্রামে ওই এলাকায় আব্বাস আলী নামে এক ব্যক্তি বিদ্যুৎ মিটার ও সংযোগ দেওয়ার নামে অবৈধভাবে অনেক মানুষের কাছ থেকে হাজার হাজার টাকা নেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। স্থানীয় ইউপি জন প্রতিনিধিরা জানান, তারা এ টাকা অন্য খাতে ব্যয় করবেন।