উৎসবমূখর পরিবেশে আশাশুনিতে সপ্তশতী গীতাযজ্ঞ ও দ্বি-বার্ষিক ব্রাক্ষণ সম্মেলন


প্রকাশিত : জুন ৮, ২০১৯ ||

নিজস্ব প্রতিনিধি: বাংলাদেশ ব্রাহ্মণ সংসদের মহাসচিব বিজয়কৃষ্ণ ভট্টাচার্য বলেন, ব্রাহ্মণ সন্তানদের সুশিক্ষায় শিক্ষিত করে গড়ে তুলতে হবে। তাদের নিয়মিত প্রশিক্ষণ ও গীতা পাঠের মধ্যদিয়ে ধর্মীয় শিক্ষায় পারাদর্শী হতে হবে। তাহলে এ সমাজ ব্যবস্থাকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া সম্ভব হবে।
তিনি আরো বলেন, সম্প্রতি এক শ্রেণির মানুষ আমাদের বিরুদ্ধে মিথ্যাচার করে চলেছে। তাদের হুশিয়ারী করে তিনি বলেন, ব্রাহ্মণ পরিবারের উপর কোন ধরণের আঘাত আনার চেষ্টা করবেন না। যদি কেউ এমন অপচেষ্টা করেন তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
তিনি শনিবার বিকালে বাংলাদশ ব্রাহ্মণ সংসদ জেলা শাখার আয়াজনে আশাশুনির কাপসন্ডা (গদাইপুর) সার্বজনীন জগদ্ধাত্রী মন্দির প্রাঙ্গনে সপ্তশতী গীতাযজ্ঞ (হামযজ্ঞ) ও দ্বি-বার্ষিক ব্রাহ্মণ সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।
বাংলাদেশ ব্রাহ্মণ সংসদ জেলার আহবায়ক করুণা কান্তি ব্যানার্জীর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথির বক্তব্য বাখেন, আশাশুনি উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান অসীম বরণ চক্রবর্তী, কালিগঞ্জ উপজেলার ধলবাড়িয়া আওয়ামী লীগের সভাপতি ও এমপি প্রতিনিধি সজল মুখার্জী, বাংলাদেশ ব্রাহ্মণ সংসদ কেন্দ্রীয় কমিটির প্রচার সম্পাদক তরুণ আচার্য, খুলনা জেলার সভাপতি গোপাল মুখার্জী, সাতক্ষীরা জেলা প্রশিক্ষক সঞ্জয় চক্রবর্তী, কিরণ চন্দ্র ভট্টাচার্য, শ্যামনগর উপজলার সমাজসবা অফিসার কিরণ চট্টাপাধ্যায় ও আশাশুনি সপ্তশতী গীতাযজ্ঞ ও দ্বি-বার্ষিক ব্রাহ্মণ সম্মলনের মহাসচিব বিজয় কৃষ্ণ ভট্টাচার্য।
এর আগে জগদ্ধাত্রী মন্দিরে সপ্তশতী গীতাযজ্ঞ (হামযজ্ঞ) করা হয়। হামযজ্ঞে সাতক্ষীরা, খুলনা ও ঢাকা জেলার ২৫জন ব্রাহ্মণ অংশগ্রহণ করন। শেষে করুণা কান্তি ব্যানার্জীকে সভাপতি ও শংকর ব্যানার্জীকে সাধারণ সম্পাদক করে বাংলাদেশ ব্রাহ্মণ সংসদ সাতক্ষীরা জেলার কমিটি ঘোষণা করা হয়। এসময় সাতক্ষীরা, যশার খুলনা ও ঢাকা জেলার শতশত ব্রাহ্মণ উপস্থিত ছিলেন।