বিদ্যুতের প্রিপেইড মিটার নিয়ে যেন কেউ ভোগান্তিতে না পড়ে: এমপি রবি


প্রকাশিত : June 27, 2019 ||

নিজস্ব প্রতিনিধি: ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য সদর আসনের সংসদ সদস্য মীর মোস্তাক আহমেদ রবি বলেন, ‘সাতক্ষীরার মানুষ কষ্ট, হয়রানী পাক তা আমি চাইনা। আমার এলাকার মানুষকে আমি সর্বদা সুখে ও শান্তিতে রাখতে চাই। এটা আমার দায়বদ্ধতা। কারণ এই জনগণ আমাকে তাদের মূল্যবান ভোট দিয়ে জনপ্রতিনিধি বানিয়েছে। তাদের সুখ দু:খ মানে আমার সুখ-দু:খ। বর্তমানে বিদ্যুৎ সংযোগে প্রি-পেইড মিটার সংযোজনে কিছু কিছু বিদ্যুৎ গ্রাহক ভোগান্তি ও হয়রানীর শিকার হচ্ছে এবং এই প্রি-পেইড মিটার স্থাপনে কয়েকটি এলাকায় বিক্ষোভের মত ঘটনা ঘটেছে। এটা খুবই বেদনাদায়ক। যেসব প্রি-পেইড মিটারে সমস্যা হচ্ছে সেগুলো পরিবর্তন করাসহ বিদ্যুৎ গ্রাহকদের অভিযোগ ও সমস্যাগুলি সমাধানের নির্দেশ দেন এমপি রবি। তিনি আরো বলেন, সাতক্ষীরায় এখন আর বিদ্যুতের লোড শেডিং নেই। তিনি প্রি-পেইড মিটার স্থাপনে জনগণের অভিযোগের ভিত্তিতে বুধবার দুপুরে ওয়েস্ট জোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানী লি. সাতক্ষীরা বিদ্যুৎ সরবরাহ অফিসে যান এবং এসব কথা বলেন।
এ ব্যাপারে ওয়েস্ট জোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানী লি. সাতক্ষীরা বিদ্যুৎ সরবরাহ অফিসের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. হাবিবুর রহমান বলেন, সাতক্ষীরায় ৩৫ হাজারের মধ্যে ২৭ হাজার প্রিপেইড মিটার ইতোমধ্যে স্থাপন করা হয়েছে। বাকিগুলো সংযোজন করা হবে। প্রিপেইড মিটার ছাড়া বিদ্যুৎ বিতরণ হবে না। খুব শীঘ্রই জনগণের সমস্যা নিয়ে তা গণশুনানীর মাধ্যমে সমাধান করা হবে এবং প্রিপেইড মিটারের সুফল ও উপকারিতা সম্পর্কে জনগণের মাঝে তুলে ধরা হবে।
এসময় সেখানো আরো উপস্থিত ছিলেন পরিচালনা ও সংরক্ষণ সার্কেল যশোর’র তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মো. শহিদুল আলম, জেলা আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদক শেখ নুরুল হক, দপ্তর সম্পাদক শেখ হারুন উর রশিদ, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি মোহাম্মদ আবু সায়ীদ, সাধারণ সম্পাদক সাহাদাৎ হোসেন প্রমুখ।