হাড়দ্দহ সীমান্তে বিএসএফ’র গুলিতে বাংলাদেশী গরু রাখাল আহত!


প্রকাশিত : জুলাই ৮, ২০১৯ ||

নিজস্ব প্রতিনিধি: অবৈধপথে গরু আনতে যেয়ে এক গরু রাখাল ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বিএসএফ’র হাতে গুলিবিদ্ধ হয়েছে। রোববার ভোর চারটার দিকে সাতক্ষীরার হাড়দ্দহ সীমান্তের বিপরীতে ভারতের পানিতর স্লুইস গেটের পার্শ্ববর্তী কাটা তারের বেড়ার শুন্যরেখা বরাবর এ ঘটনা ঘটে। তাকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় খুলনা ২৫০ শয্যা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
গুলিবিদ্ধ গরু রাখালের নাম মো. শাহাবুদ্দিন (২৭)। তিনি সাতক্ষীরা সদর উপজেলার হাড়দ্দহ আদর্শ গ্রামের এছহাক আলীর ছেলে।
সীমান্ত গ্রামবাসি জানায়, খাটাল মালিক মন্টুর নির্দেশে শনিবার রাত ১১টার দিকে শাহাবুদ্দিনসহ ১৫/২০জন গরু রাখাল তালতলা গ্রামের চোরাঘাটমালিক ফনতুর বাড়ির সামনে দিয়ে চোরাঘাট মালিক জাকির সহায়তায় ভারতের পশ্চিমবঙ্গের উত্তর ২৪ পরগণা জেলার বসিরহাট মহকুমার পানিতরে গরু আনতে যায়। রোববার ভোর চারটার দিকে তারা কমপক্ষে ৩০টি গরু নিয়ে দেশে ফেরার সময় পানিতর স্লুইস গেটের পাশে শুন্যরেখা এলাকায় কাটা তারের বেড়ার পাশে টহলরত বিএসএফ তাদেরকে লক্ষ্য করে গুলি ছোঁড়ে। এতে শাহাবুদ্দিন বাম পায়ে গুলিবিদ্ধ হয়। তার সহযোগিরা তাকে উদ্ধার করে গোপনে তার চিকিৎসা করায়। রক্তক্ষরণ বন্ধ না হওয়ায় অবস্থার অবনতি হলে শাহাবুদ্দিনকে একটি মাইক্রোবাসে করে দুপুর ১২টার দিকে সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ এন্ড হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। সেখানে তাকে ভর্তি না নেওয়ায় খুলনা ২৫০ শয্যা হাসপাতালের তিন তলায় ১০ নং কক্ষের মেঝেতে ভর্তি করা হয়। হাড়দ্দহ গ্রামের বৈচা নামক এক ব্যক্তি তার রক্ত দেয়। তবে তার অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছেন এলাকাবাসি।
তবে হাড়দ্দহ এলাকার খাটাল মালিক মন্টু বলেন, শাহাবুদ্দিন নামে এক যুবক গুলিবিদ্ধ হয়েছে বলে তিনি শুনেছেন। তবে তাকে তিনি ভালভাবে চেনেন না।
বিজিবি’র সাতক্ষীরা ৩৩ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক খন্দকার গোলাম মহিউদ্দিন সাংবাদিকদের বলেন, তিনি রোববার সকালে এ ধরণের একটি কথা শুনেছেন উল্লেখ করে বলেন, খাটাল মালিকদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন। এ সময়ও তিনি কিছু জানতে পারেননি। বিএসএফ এ ধরণের ঘটনা অস্বীকার করেছে। তবে ওই খাটালটি নিয়ে এলাকায় দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছে। অভ্যন্তরীন কোন বিরোধের কারণে এ ধরণের গুলিবিদ্ধের ঘটনা ঘটেছে কিনা তা খোঁজ নিয়ে দেখা হবে।